বুধবার ২১ এপ্রিল, ২০২১

নারায়ণগঞ্জে একজন কালো মহিলা আছে নাম বলবো না

শুক্রবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২৩:২৭

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. খোকন সাহা বলেছেন, ‘গত কয়দিন আগে নারায়ণগঞ্জে একজন কালো মহিলা আছে, নাম বলবো না। সে পত্রিকায় বলেছেন সেলিম ওসমান পরের ধনে পোদ্দারি করে। অন্যের টাকায় দানবীর। আচ্ছা আপনার কথায় সেলিম ওসমান অন্যের টাকায় উন্নয়ন করে। সেলিম ওসমান পরের টাকায় যত উন্নয়ন করছে। আপনি সেটার সিঁকি ভাগই করে দেখান। আপনাকে ধন্যবাদ দিবো।’

শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে বন্দর উপজেলার ধামগড় ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডে এক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ একেএম সেলিম ওসমান৷

তিনি আরও বলেন, ‘সেলিম ওসমান অন্যের টাকায় দানবীর নয়, সে বিশাল ব্যবসায়ী। সামান্য আয়ের টাকা সে সংসার লালন-পালন করেন এবং বাকি টাকা এই দেশের মানুষের উন্নয়নের জন্য দিয়ে দেয়। সেলিম ভাই এই পাঁচ আসনে কত উন্নয়ন করেছেন। তিনি বলেছেন, আমার কাছে তার হিসাব নাই। তাই আমি বললো সেলিম ভাইয়ের ব্যাপারে আপনার এই বক্তব্য জনগণ প্রত্যাহার করেছে।’

খোকন সাহা বলেন, ‘দেবোত্তর সম্পত্তি মেয়রের বাবা চাচারা ছয়টা দলিলে ৬০ হাজার টাকায় কিনেছেন। যা বলবো দায়িত্ব নিয়ে বলবো। আপনি বলছেন ইট খুলে আনবেন। কার ইট খুলে আনবেন। আপনি কী জানেন ওই বাড়িতে ১৯৭৮ সালে শামসুজ্জোহার শিষ্য মাহমুদুল ইসলামকে বাদ দিয়ে কাকে সভাপতি করেছিলেন খবরটা আপনি জেনে নিবেন।’

তিনি বলেন, ‘চন্দন শীল আমার বন্ধু । তাদেরকে কোথায় কোথায় পাঠাইবেন। এদেশের রাজনীতির জন্য বাদল দীর্ঘদিন শ্রম দিয়েছেন। সেই বাদলকে আপনি চাঁদপুরে পাঠাইতে চান। আপনার দাদা কই থেইকা আসছে? ঐ মুন্সিগঞ্জের লৌহজং, সাপেরচর থেকে আসছিল। সব দাগ খতিয়ান আছে আমাদের কাছে। আমরা এত অভদ্র না যে আপনাকে সাপেরচর পাঠিয়ে দেবো। অবশ্যই জনগণ আপনাকে প্রত্যাখান করবে।’

খোকন সাহা বলেন, ‘সেলিম ওসমান ৭৫ সালের পরে মুরগী বিক্রি করতেন। আর এখন সেই মুরগীওয়ালা শত শত কোটি টাকা দান করেন মানুষের কল্যাণের জন্য। তাই উনাকে নিয়ে আর কটুক্তি করবেন না। আপনার আগে ২০১৪ সালে সেলিম ভাইকে ৫ আসনে নমিনেশন দিয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আপনার বোঝা উচিৎ। একজন জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য বক্তব্যের শুরুতেই বঙ্গবন্ধুর কথা বলেন। আবার বক্তৃতা শেষে বলেন জয় বাংলা।’

তিনি হুশিয়ারি দিয়ে আরও বলেন, ‘খোঁচা দেওয়ার চেষ্টা করবেন না। আগামীতে খোঁচা দিবেন, চুলকাইবেন। চুলকাইয়েন না! বেশি চুলকাইলে ৭২ থেকে ৭৫ সারাদেশে কাদের কারণে সরকারের বদনাম হয়েছিল আমি সব বলে দিবো। আমি সব বলবো৷ কাদের সম্পত্তি কারা দখল করেছে এবং ভারতে পাঠিয়েছেন। অতএব কৃতকর্মের জনগণের কাছে ক্ষমা চান। নেত্রীর পায়ে ধরে নমিনেশন আনেন। আমরা শেখ হাসিনার গোলাম হিসেবে বাদল, চন্দন, আমি ও আমাদের বন্ধু শামীম ওসমানসহ আমরা আপনাকে জয়যুক্ত করার জন্য যা যা করার তাই করবো।’

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বন্দর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এমএ রশীদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত মো. শহীদ বাদল, মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি চন্দন শীল, বন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজিম উদ্দিন, নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি আরিফ আলম দিপু, মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন সাজনু, বন্দর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান সানাউল্লাহ সানু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সালিমা শান্তা, বন্দর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এহসানউদ্দিন আহমেদ, ধামগড় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাসুম আহমেদ প্রমুখ।

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ