মঙ্গলবার ০৭ এপ্রিল, ২০২০

নারায়ণগঞ্জবাসীর প্রতি জেলা পুলিশের আহবান

মঙ্গলবার, ২৪ মার্চ ২০২০, ১৮:৩৩

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: করোনা ভাইরাস থেকে নিজেদের রক্ষা করতে জনসচেতনামূলক বিভিন্ন পরামর্শ দিয়ে নারায়ণগঞ্জবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) জেলা পুলিশের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে এক বার্তায় এই আহ্বান জানায় নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ।

জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়, আপনারা (নারায়ণগঞ্জবাসী) ইতোমধ্যে সকলেই অবগত হয়েছেন যে, করোনা ভাইরাসের প্রভাবে সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আগামী ২৬ মার্চ, ২০২০ তারিখ থেকে ০৪ এপ্রিল, ২০২০ পর্যন্ত ১০ দিন সকল সরকারী ও বেসরকারী অফিস, প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। একইসাথে সকল মার্কেট ও বিপনী বিতান, পার্ক, জনসমাবেশ স্থানসমূহ বন্ধ করার নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। এ ঘোষণার মূল কারণ সামাজিক দূরত্ব বৃদ্ধি করা। জেলা প্রশাসনকে এ ব্যাপারে সহযোগিতা করার জন্য আজ থেকে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হবে।

নারায়ণগঞ্জ জেলার প্রচুর ব্যবসায়ী ও চাকুরিজীবি আছেন যারা এ ছুটিকালীন সময়ে নারায়ণগঞ্জ জেলায় অবস্থান করবেন। এছাড়াও ইতোমধ্যে অনেকেই বিদেশ থেকে এসে হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন। করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সকলকে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে অনুরোধ করা যাচ্ছে যে,

১. কেহ অহেতুক, অপ্রয়োজনে বাসা/বাড়ির বাইরে বের হবেন না,

২. হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তি কোন ক্রমেই তার নির্দিষ্ট কক্ষ থেকে বের হবেন না,

৩. বিদেশ থেকে আগত অনেক ব্যক্তি হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন। তারা কোয়ারেন্টাইন সময়সীমা শেষ না হওয়া পর্যন্ত স্বাস্থ্য বিভাগ কর্তৃক প্রদানকৃত নির্দেশনা মেনে চলুন,

৪. হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তির সংস্পর্শ এড়িয়ে চলুন,

৫. সবসময় পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকুন, বারবার হাত-মুখ ধোঁয়ার অভ্যাস গড়ে তুলুন,

৬. অবসর সময় কাটানোর জন্য ঘরে ধর্মীয় উপাসনা করুন, বই পড়ুন, টিভি অনুষ্ঠান দেখুন এবং অন্য কোন ব্যবস্থা করুন,

৭. শিশুদেরকে ঘরের মধ্যে রাখার চেষ্টা করুন,

৮. কাঁচা বাজার, ঔষধের দোকান, নিত্য পণ্যের দোকান খোলা থাকবে। প্রয়োজনে পর্যাপ্ত প্রতিরোধ ব্যবস্থা (মাস্ক, হ্যান্ড গ্লোবস) ব্যবহার করে স্বল্প সময়ের জন্য এখান থেকে প্রয়োজনীয় পণ্য সংগ্রহ করুন,

৯. দেশে কোন খাদ্য ঘাটতি নেই এবং দেশে পর্যাপ্ত খাদ্যপণ্য মজুদ আছে। তাই বিচলিত না হয়ে অযথা কোন খাদ্যপণ্য কিনে প্রয়োজনের অতিরিক্ত মজুদ করবেন না,

১০. পরিবারের বৃদ্ধ ব্যক্তিদের প্রতি বিশেষ নজর রাখুন। তারা যেন কোন ক্রমেই করোনা ভাইরাস বহনকারী বা আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে না যায়,

১১. কোন অবস্থাতেই অন্য কারো সাথে হ্যান্ডসেক বা কোলাকুলি করা যাবে না। জনসমাগম এড়িয়ে চলে নিজেকে এবং অন্যকে নিরাপদ রাখতে হবে,

১২. সাবান অথবা জীবাণু নিরোধক দিয়ে হাত পরিস্কার না করে কোন অবস্থাতেই চোখ, নাক, মুখ স্পর্শ করবেন না,

১৩. একজন অন্যজন থেকে কমপক্ষে ৩ ফুট দূরত্ব বজায় রেখে কথা বলবেন। আপনার হাঁচি, কাশি থেকে নিঃসৃত থুথু, লালা ও সর্দি থেকে সংক্রমিত হতে পারে করোনা ভাইরাস। সকলকেই এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে,

১৪. আপনার শরীরে যদি করোনা ভাইরাস আক্রান্তের কোন লক্ষণ প্রকাশিত হয়, তাহলে সিভিল সার্জনের কার্যালয়/স্থানীয় স্বাস্থ্য কেন্দ্র/অফিসার ইনচার্জ/স্থানীয় উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করুন। আপনার সুচিকিৎসায় সকল প্রকার সহযোগিতা করতে এসব প্রতিষ্ঠান বদ্ধপরিকর। প্রয়োজনে টোল ফ্রি স্বাস্থ্য সেবা হটলাইন ৩৩৩ বা ১৬২৬৩ নম্বরে ফোন করে পরমর্শ গ্রহণ করুন,

১৫. গুজবে কান না দিয়ে সঠিক তথ্যের জন্য জেলা পুলিশ, থানা পুলিশ ও স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তা নিন। গুজব প্রচারকারীর বিরুদ্ধে জেলা পুলিশ সদা সোচ্চার, আপনিও সোচ্চার হোন। প্রয়োজনে ৯৯৯ এ কল করুন। এছাড়াও নারায়নগঞ্জ জেলা পুলিশের কন্ট্রোলরুমে (০১৭৬৯৬৯৪৫৬৮) যোগাযোগ করতে পারেন,

১৬. গণপরিবহণ সীমিত থাকবে। জরুরী প্রয়োজন না হলে গণপরিবহন (বাস, ট্রেন, লেগুনা, লঞ্চ, ট্রলার, ফেরী, অটোরিকশা) ব্যবহার থেকে বিরত থাকুন। গণপরিবহণ ব্যবহারের সময় অবশ্যই পর্যাপ্ত প্রতিরোধ ব্যবস্থা (মাস্ক, হ্যান্ড গ্লোবস ইত্যাদি) ব্যবহার করবেন,

১৭. করোনা ভাইরাস সম্মন্ধে নিজে জানুন, অন্যকে জানান এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে প্রতিরোধ গড়ে তুলুন।

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ