সোমবার ২২ জুলাই, ২০১৯

‘না.গঞ্জে প্রতি মাসে দেড় কোটি টাকার মাদক ব্যবসা হয়’

বুধবার, ২৬ জুন ২০১৯, ১৯:৩২

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জে প্রতি মাসে দেড় কোটি টাকা মাদক ব্যবসা হয় বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মনিরুল ইসলাম। বুধবার (২৬ জুন) সকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচারবিরোধী সভায় তিনি একথা বলেন।

‘নারায়ণগঞ্জেই ইয়াবার বিশাল মার্কেট প্লেস’ উল্লেখ করে জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন এই কর্মকর্তা বলেন, আমি নারায়ণগঞ্জে জয়েন করার ৩ দিন পরেই ১ লাখ ৭২ হাজার পিস ইয়াবার চালান ধরেছি। এর ২ দিন পরেই আবার ১ লাখ পিস ইয়াবা জব্দ করেছি। নারায়ণগঞ্জে মাসে প্রায় দেড় কোটি টাকার মাদকের ব্যবসা হয়। এমন কোন দিন নাই ক্রসফায়ার হচ্ছে না। কিন্তু তাও এই সর্বগ্রাসী মাদক বন্ধ হচ্ছে না।

তিনি আরো বলেন, ‘এক সময়ের ফাস্টেস্ট গ্রোয়িং এই বাংলাদেশ আজকে প্রমিসিং বাংলাদেশ। পুরো এশিয়ার কাছে কাছে যা নেই তা আমার বাংলাদেশের কাছে আছে তা হলো আমাদের যুবসমাজ ও যুবশক্তি। বাংলাদেশের উন্নয়নের প্রধান বাধাগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো, মাদক ও জঙ্গিবাদ। মাদককে বলা হয় ‘মাদার অব অল ক্রাইমস’। আমরা মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছি। কিন্তু এত প্রচেষ্টার পরেও আমরা কাঙ্খিত সাফল্য পাচ্ছি না। কারণ মাদকের বীজ যে জায়গায় সে জায়গায় আমরা হাত দিতে পারিনি। মাদকের গ্লোবাল মার্কেট ভ্যালু ৫০০ বিলিয়ন ইউএসডি আর সে জায়গায় পুরো বাংলাদেশেই এর মাকর্টে ভ্যালু ৮০ বিলিয়ন ইউএসডি। বাংলাদেশে মাদকের মার্কেট প্লেস বিশাল। ২০০৫ সালের একটি জরিপে দেখেছিলাম, ইয়াবার মার্কেট বাংলাদেশে তৎকালীন সময়ে ছিল ৫০ লক্ষ কোটি টাকা। এতদিনে হয়ত তা ৪-৫ গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে।’

জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের আয়োজনে এ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট যুথিকা সরকারের সভাপতিতে আরো উপস্থিত ছিলেন, সিভিল সার্জন ডা. মোহাম্মদ ইমতিয়াজ, সদর ইউএনও নাহিদা বারিক, বিজিবির সহ-অধিনায়ক এসএম হাবিব, জেল সুপার সুভাষ চন্দ্র, মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক শামসুল আলম প্রমুখ।

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ