মঙ্গলবার ১৮ জুন, ২০১৯

না.গঞ্জে জেএসসিতে ৯২৩ বৃত্তি, সেরা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়

শুক্রবার, ১৭ মে ২০১৯, ২১:৩৯

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: ২০১৮ সালের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষায় নারায়ণগঞ্জে এবার বৃত্তি পেয়েছে ৯শ’ ২৩ শিক্ষার্থী। এর মধ্যে ‘মেধা বৃত্তি’ ৩শ’ ৯ এবং ‘সাধারণ বৃৃত্তি’ পেয়েছে ৬শ’ ১৪ জন ছাত্রছাত্রী। জেলার ৭ থানা এলাকার বিভিন্ন স্কুলে মেধা বৃত্তিতে মেয়েরা এবং সাধারণ বৃত্তিতে ছেলেরা এগিয়ে রয়েছে।

গত মঙ্গলবার ঢাকা মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের অধীন ২০১৮ সালের জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে ‘মেধা বৃত্তি’ ও ‘সাধারণ বৃত্তি’ তালিকা বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সকল মেধা বৃত্তি ও সাধারণ বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থী বিনা বেতনে অধ্যয়নের সুযোগ লাভ করবে। সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত ও শিক্ষা বোর্ডের অধিভুক্ত কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীর কাছ থেকে মাসিক বেতন (টিউশন ফি) আদায় করতে পারবে না। যদি কেউ তা করে, তাহলে ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মেধা বৃত্তিপ্রাপ্ত প্রত্যেক শিক্ষার্থী মাসে ৪৫০ টাকা এবং সাধারণ বৃত্তিপ্রাপ্ত প্রত্যেক শিক্ষার্থী মাসে ৩০০ টাকা হারে বৃত্তি পাবে। বই-পত্র ও যন্ত্রপাতি কেনার জন্য অনুদান হিসেবে মেধা বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থী প্রতি বছর ৫৬০ এবং সাধারণ বৃত্তিপ্রাপ্ত প্রত্যেক শিক্ষার্থী প্রতি বছর ৩৫০ টাকা এককালীন অর্থ সাহায্য পাবে।

এ বৃত্তির মেয়াদ চলতি বছরের জানুয়ারি মাস থেকে ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

নারায়ণগঞ্জ থানা এলাকায় বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৬৪ জন। মেধা বৃত্তি পেয়েছে ৫৫ শিক্ষার্থী। তার মধ্যে মেয়ে ৪৯ এবং ছেলে ৬। মেধা বৃত্তি পাওয়া ৬ ছেলে নারায়ণগঞ্জ আইডিয়াল স্কুলের শিক্ষার্থী। আর মেয়েদের ৪৯টির মধ্যে নারায়ণগঞ্জ সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ৪৭টি, নারায়ণগঞ্জ আইডিয়াল স্কুল ১টি ও মর্গ্যাণ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ১টি। আর সাধারণ তালিকায় বৃত্তি পাওয়া ১০৯ শিক্ষার্থীর মধ্যে ছেলে ৭৫ এবং মেয়ে ৩৪।

আড়াইহাজার থানায় মেধা তালিকায় ৪৮টি মধ্যে মেয়েদের দখলেই ৪৩টি বৃত্তি। তার মধ্যে পাঁচগাঁও হাই স্কুল ১০টি, কলাগাছিয়া আর এফ হাই স্কুল ১টি, সেন্ট্রাল ক্রোনেশন হাই স্কুল ৭টি, পুরিন্দা কে এম সাদেকুর রহমান হাই স্কুল ৪টি, আড়াইহাজার পাইলট হাই স্কুল ১৩টি, এ. এম বদরুজ্জামান হাই স্কুল ৪টি, গোপালদী গার্লস হাই স্কুল ১টি, চৈতাকান্দা গোলাম মোহাম্মদ হাই স্কুল ২টি ও শম্ভুপুর হাই স্কুল ১টি।

এ থানা এলাকায় ৫ ছেলে পেয়েছে মেধা বৃত্তি। তার মধ্যে সেন্ট্রাল ক্রোনেশন হাই স্কুল ২টি, আড়াইহাজার পাইলট হাই স্কুল ১টি, কলাগাছিয়া হাই স্কুল ১টি ও শম্ভুপুর হাই স্কুল ১টি।

এ ছাড়া আড়াইহাজার থানায় সাধারণ তালিকায় ছেলেরা পেয়েছে ৬৬টি এবং মেয়েরা পেয়েছে ২৯টি বৃত্তি।

বন্দর থানায় ৩২টি মেধা বৃত্তির মধ্যে ১৮টি মেয়েদের দখলে। তার মধ্যে লক্ষণখোলা আলহাজ্ব ফজুলর রহমান হাই স্কুল ১টি, বন্দর গার্লস স্কুল এ- কলেজ ১৪টি, হাজী ইব্রাহীম আলম চান মডেল স্কুল এ- কলেজ ১টি, সামসুজ্জোহা এম.বি ইউনিয়ন হাই স্কুল এ- কলেজ ১টি ও মালিবাগ কেরামতিয়া হাই স্কুল ১টি।

এ থানায় ২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১৪ ছেলে মেধা বৃত্তি পেয়েছে। প্রতিষ্ঠান দুটি হলো বি.এম ইউনিয়ন হাই স্কুল ১৩টি ও বি.এস.ই.সি ডকইয়ার্ড হাই স্কুল ১টি।

বন্দর থানায় সাধারণ কোটায় বৃত্তির সংখ্যা ৬৪টি। তার মধ্যে ছেলে ৩৪ এবং মেয়ে ৩০ জন।

সোনারগাঁ থানায় ৩৭টি মেধাবৃত্তির মধ্যে মেয়ে ৩০ এবং ছেলে ৭ জন। মেয়েদের ৯টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হলো চৌধুরীগাঁও হাই স্কুল ৫টি, হোসেনপুর এস.পি ইউনিয়ন হাই স্কুল ২টি, সিনহা উচ্চ বিদ্যালয় ৫টি, সোনারগাঁ পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ৩টি, কাঁচপুর ওমর আলী হাই স্কুল ১টি, মোগরাপাড়া এইচজিজিএস স্মৃতি বিদ্যা নিকেতন ৬টি, জামপুর মাঝেরচর এম.এস.জি.কে হাই স্কুল ৩টি, সোনারগাঁ জি.আর ইনস্টিটিউশন ৪টি ও তাহেরপুর হাজী লাল মিয়া হাই স্কুল ১টি।

এ থানায় মেধা বৃত্তি পাওয়া ৭ ছেলের ৫ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হলো হোসেনপুর এস.পি ইউনিয়ন হাই স্কুল ২টি, মেঘনা শিল্পনগরী হাই স্কুল এ- কলেজ ২টি, বারদী হাই স্কুল ১টি, জামপুর মাঝেরচর এম.এস.জে. কে হাই স্কুল ১টি ও মহজমপুর হাই স্কুল ১টি।

সোনারগাঁ থানায় সাধারণ বৃত্তির সংখ্যা ৭৩টি। এর মধ্যে ছেলে ৪৭ এবং মেয়ে ২৬ জন।

রূপগঞ্জ থানায় মেধাবৃত্তি পেয়েছে ৩৫ জন মেয়ে এবং ২০ জন ছেলে। ১১ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে ৩৫ মেয়ে মেধা বৃত্তি পেয়েছে। সেগুলো হলো হাজী মো. এখলাসউদ্দিন ভূঁইয়া হাই স্কুল ৮টি, হাজী নূর উদ্দিন আহমেদ হাই স্কুল ২টি, আমদিয়া কৃষক শ্রমিক হাই স্কুল ৩টি, নূরুল হক হাই স্কুল ৪টি, মুড়াপাড়া পাইলট হাই স্কুল ২টি, কাজী মহিউদ্দিন মডেল হাই স্কুল ৫টি, জনতা হাই স্কুল ২টি, বোলাবো শহীদ স্মৃতি হাই স্কুল ১টি, আব্দুল হক ভূঁইয়া ইন্টারন্যাশনাল হাই স্কুল ২টি, গোলাকান্দাইল মজিবুর রহমান ভূঁইয়া হাই স্কুল ৪টি ও দাউদপুর পুটিনা হাই স্কুল ২টি।

এ থানায় ১০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ২০ ছেলে মেধা বৃত্তি পেয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলো হলো হাজী মো. এখলাসউদ্দিন ভূঁইয়া হাই স্কুল ৮টি, আমদিয়া কৃষক শ্রমিক হাই স্কুল ২টি, জনতা হাই স্কুল ১টি, গোলাকান্দাইল মজিবুর রহমান ভূঁইয়া হাই স্কুল ২টি, দাউদপুর পুটিনা হাই স্কুল ২টি, ইউসুফগঞ্জ হাই স্কুল ১টি, আশরাফউদ্দিন জুট মিলস আদর্শ হাই স্কুল ১টি, হাজী আয়াত আলী ভূঁইয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় ১টি, কাজী আব্দুল হামিদ হাই স্কুল ১টি ও হাজী নূর উদ্দিন আহমেদ হাই স্কুল ১টি।

রূপগঞ্জ থানায় সাধারণ বৃত্তি পেয়েছে ৬১ জন ছেলে ও ৪৮ জন মেয়ে।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় মেধা বৃত্তি পাওয়া মেয়ের সংখ্যা ৩৪ এবং ছেলের সংখ্যা ৩। ৭ প্রতিষ্ঠানের ৩৪ মেয়ে মেধা বৃত্তি পেয়েছে। সেগুলো হলো সানারপাড়া শেখ মোরতজা আলী হাই স্কুল ৩টি, বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড জুনিয়র স্কুল ৪টি, সিদ্ধিরগঞ্জ রেবতী মোহন পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় ১২টি, গিয়াসউদ্দিন ইসলামিক মডেল জুনিয়র স্কুল ৪টি, মিজমিজি পশ্চিমপাড়া হাই স্কুল ৫টি, এম.ডব্লিউ হাই স্কুল ৪টি ও আনন্দলোক হাই স্কুল ২টি।

এ থানায় সানারপাড়া শেখ মোরতজা আলী হাই স্কুলের ৩ ছাত্র মেধা বৃত্তি পেয়েছে।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় সাধারণ বৃত্তি পাওয়া ছেলের সংখ্যা ৫২ এবং মেয়ের সংখ্যা ২২।

ফতুল্লা থানায় ৪৫টি মেধাবৃত্তির মধ্যে মেয়ে ২৯ এবং ছেলে ১৬। মেয়েরা যেসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে মেধা বৃত্তি পেয়েছে সেগুলো হলো ফতুল্লা পাইলট হাই স্কুল ১৫টি, পাগলা হাই স্কুল ৪টি, নবীনগর শাহ ওয়ার আলী হাই স্কুল ৪টি, আলীগঞ্জ হাই স্কুল ৩টি, দেলপাড়া লিটল জিনিয়াস হাই স্কুল ২টি ও কমর আলী হাই স্কুল ১টি।

এ থানায় ৩টি স্কুলের ১৬ ছেলে মেধা বৃত্তি পেয়েছে। স্কুলগুলো হলো আদর্শ স্কুল ১৪টি, দেওভোগ হাজী উজির আলী হাই স্কুল ১টি ও পাগলা হাই স্কুল ১টি।

ফতুল্লা থানায় ৯০টি সাধারণ বৃত্তির মধ্যে ছেলে ৫১ এবং মেয়ে ৩৯।

সব খবর
শিক্ষাঙ্গন বিভাগের সর্বশেষ