শুক্রবার ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০

ধর্ষণের পর অন্তঃসত্ত্বা নারীর জোরপূর্বক গর্ভপাত, গ্রেফতার ১

মঙ্গলবার, ২ জুলাই ২০১৯, ১৯:১০

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: সোনারগাঁয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিখে এক নারী জামদানি কারিগরকে একাধিকবার ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় নারী কারীগরের বাবা বাদী হয়ে মঙ্গলবার (২ জুলাই) সকালে সোনারগাঁ থানায় একটা মামলা দায়ের করেছেন। এ ঘটনায় পুলিশ মামলার প্রধান আসামি ইউসুফ আলীকে গ্রেফতার করেছে।

মামলার এজাহারে বাদী উল্লেখ করেন, ভুক্তভোগী নারী তার বাড়ির পার্শ্ববর্তী ইউসুফ আলী ও নুরুল ইসলামের বাড়িতে জামদানি বুননের কাজ করতো। কাজ করার সুবাদে ইউসুফ আলী বিভিন্ন কথা বলে ফুসলিয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে নুরুল ইসলামের সহায়তায় গত এক বৎসর যাবৎ বিভিন্ন সময় ও তারিখে ধর্ষণ করে আসছে। ধর্ষণের ফলে মেয়েটি তিন মাসের অন্তঃস্বত্বা হয়ে পড়লে সে তার পরিবারকে জানায়। ধর্ষিতার পরিবার আসামি ইউসুফকে বিয়ের জন্য চাপ দিলে সে বিভিন্ন টালবাহানা শুরু করে। ঘটনাটি এলাকায় জানাজানি হলে বিবাদী নুরুল ইসলাম ও ইউসুফকে বাঁচাতে এলাকার কতিপয় প্রভাবশালীরা ধর্ষিতার পরিবারকে মামলা না করার জন্য চাপ প্রয়োগ করে। এক পর্যায়ে বিচার সালিশের মাধ্যমে মিমাংসা করার আশ্বাস দিয়ে ধর্ষিতাকে বিবাদী নুরুল ইসলামের বাড়িতে আটকে রেখে পেটের বাচ্চা নষ্ট করে ফেলে। খবর পেয়ে ধর্ষিতার বাবা আহত অবস্থায় তার মেয়েকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে মঙ্গলবার সকালে সোনারগাঁ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

পরে মঙ্গলবার দুপুরে পুলিশ ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে মামলার প্রধান আসামী ইউসুফ আলীকে গ্রেফতার করে।

সোনারগাঁ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) হেলাল উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, ধর্ষণের ঘটনায় থানায় একটি মামলা নেওয়া হয়েছে। আসামী ইউসুফ আলীকে গ্রেফতার করা হয়। অপর আসামিকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছেন।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ