রবিবার ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

‘দাগ আর্ট স্টেশনের লক্ষ্য শিল্প ও মানুষের মধ্যকার দূরত্ব দূর করা’

শুক্রবার, ১৩ জুলাই ২০১৮, ২১:৩৮

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: আলী আহাম্মদ চুনকা সিটি মিলনায়তন ও পাঠাগারে দাগ আর্ট স্টেশনের উদ্যোগে সপ্তাহব্যাপী বিশেষ মুক্ত প্রদর্শনীর উদ্বোধন করা হয়েছে। সপ্তাহব্যাপী চলবে এই বিশেষ মুক্ত প্রদর্শনী। পরের সপ্তাহ থেকে প্রতি শুক্রবার বিকেলে চলবে এই প্রদর্শনী।

শুক্রবার (১৩ জুলাই) সন্ধ্যা ৬টায় বোর্ডে ছবি আকাঁর মধ্য দিয়ে মুক্ত প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের উপদেষ্টা রফিউর রাব্বি, নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইন্সটিটিউটের অধ্যক্ষ সামসুল আলম আজাদ এবং ভিজুয়াল আর্টিষ্ট ও শিল্প সমালোচক মোস্তফা জামান মিন্টু ।

সমগীতের কেন্দ্রীয় সভাপতি অমল আকাশের সভাপতিত্বে এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন,সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক সভাপতি ভবানী শংকর রায়, প্রদীপ ঘোষ বাবু, সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি জিয়াউল ইসলাম কাজল, সাধারণ সম্পাদক ধীমান সাহা জুয়েল, কবি আরিফ বুলবুল, ছড়াকার আহমেদ বাবলু , কবি কবির বিটু, শিল্পী খন্দকার নাছির আহাম্মদ, শিল্পী সুমনা আক্তার, শিল্পী বদরুল আলম ইমন, শিল্পী লিটন সরকার, শিল্পী দিনার মাহমুদ, শিল্পী রঞ্জিত কর্মকার, শিল্পী অপু রাজবংশী, শিল্পী মাটি রনি, শিল্পী আমির হোসেন প্রমুখ।

সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রফিউর রাব্বি বলেন, ‘শিল্পী যখন কোনো কিছু সৃষ্টি করে তার উদ্দেশ্য যেটা থাকে সেটা হচ্ছে মানুষ। যখন কোনো শিল্পী গান করেন এবং কেউ না শুনে তাহলে এ শিল্পটিকে সে সফল বলে মনে করে না। ঠিক একইভাবে যখন কেউ প্রদর্শনী করে, নাটক করে তার উদ্দেশ্যটা থাকে সেটা যেন মানুষ দেখে, উপভোগ করে। যারা ছবি আঁকে তাদের উদ্দেশ্যটাও তাই। সে জন্যই শিল্পের সঙ্গে যারা জড়িত থাকে তারা প্রদর্শনী করে। প্রদর্শনীটা হচ্ছে শিল্পের সঙ্গে মানুষের একটি মেল-বন্ধন। আজকের এ প্রদর্শনীর উদ্দেশ্য হচ্ছে শিল্পকে মানুষের কাছাকাছি নিয়ে আসা; সমাজের বর্বরতা, নৃশংসতা তুলে ধরা। শিল্পী খুব সহজেই তা তার কাজের মাধ্যমে তুলে ধরতে পারেন। 

ভিজুয়াল আর্টিষ্ট ও শিল্প সমালোচক মোস্তফা জামান মিন্টু বলেন, ‘পাবলিক প্লেসে এভাবে ছবি নিয়ে আসাটা একটা সংগ্রাম। সংগ্রাম এই অর্থে, আমরা গ্যালারিতে ছবি দেখে অভ্যস্ত। এখন যারা উপস্থিত আছেন তারা গ্যালারির ভিতরে গিয়ে ছবি দেখবেন না। মনে বাধা চলে আসত। এই যে মনে বাধা, পাবলিক প্লেসে মানুষের সঙ্গে যে যোগাযোগটা হয় সেটা চরিত্র বদলে দেয়। চরিত্র বদলাতে যারা চায় তারাই আসলে এ ধরনের আন্দোলন সঙ্গে জড়ায়। এ প্রদর্শনীর মাধ্যমে শিল্পীরা চাচ্ছেন একটা গণসংযোগ তৈরি করতে। এটা হচ্ছে শিল্পীর সঙ্গে সাধারণ মানুষের কথোপকথন। আমি আশা করি, এটা একটি নতুন প্লেস হয়ে দাঁড়াবে।’

এ সময় অমল আকাশ বলেন, ‘আপনাদের কাছাকাছি এসে শিল্পভাষা শিখতে চাই। যে ভাষায় আমরা শিল্পী বন্ধুরা আপনাদের সঙ্গে সর্ম্পক গড়ে তুলতে পারবো। ছবি আঁকা গানের মতোই, কবিতার মতোই। ছবি আকাঁকে আপনাদের বোধগম্যতার কাছে আমরা নিয়ে যেতে চাই। আমরা চাই আপনারাও আমাদের মত ছবি আকা শিখুন।

প্রদর্শনীর আয়োজকদের মধ্যে খন্দকার নাছির আহাম্মদ প্রেস নারায়ণগঞ্জকে জানান, ‘আমরা ঢাকায় এমন আয়োজনে অংশ নিয়ে আসছি। চাচ্ছিলাম নারায়ণগঞ্জেও এমন কিছু হোক। নারায়ণগঞ্জবাসীরাও শিল্পের সঙ্গে যুক্ত হোক। আইডিয়াটা আমার একার নয়, আমাদের সব বন্ধুদের। এই প্রদর্শনীর মূল লক্ষ্য হচ্ছে শিল্প ও মানুষের মধ্যকার দূরত্বটা দূর করা। যে কেউ চাইলে এখানে তার কর্ম প্রদর্শনীর জন্য দিতে পারে। এবং আমাদের সঙ্গে যুক্ত হয়ে কাজ করতে ও শিখতে পারে। আমাদের দশ জন আর্টিষ্ট তাদের সাহায্যের জন্য থাকবেন। তিনি আরো জানান, প্রদর্শনীটি প্রতি শুক্রবার নিয়মিত হবে। ছবি আঁকা ছাড়াও এখানে গান ও আড্ডা হবে। তিনি সবাইকে আহ্বান করেন সবাই যেন প্রদর্শনীতে ছোট বাচ্চদের ছবি আঁকা শিখতে নিয়ে আসেন।

সব খবর
শিল্প ও সাহিত্য বিভাগের সর্বশেষ