বুধবার ২২ মে, ২০১৯

দাগ আর্ট স্টেশনের ৫ দিনের জলরং কর্মশালা

বৃহস্পতিবার, ২০ ডিসেম্বর ২০১৮, ২২:২২

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: “শিল্প ও শিল্পীর সাথে সাধারণ মানুষের মেলবন্ধন ঘটানো” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে দাগ আর্ট স্টেশন যাত্রা শুরু করেছিল আর তারই ধারাবাহিকতায় দাগ আর্ট স্টেশনের উদ্যোগে ৫ দিন ব্যাপি জলরং কর্মশালা শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২০ ডিসেম্বর) কর্মশালার প্রথমদিন বন্দরের কদম রসুল এলাকার ইস্পাহানী মাঠ সংলগ্ন চারপাশের দৃশ্যই মূলত আজকের কর্মশালার ছবির সাবজেক্ট। কর্মশালাটি সকাল ৯টা থেকে শুরু হয় এবং বিকাল ৫টা পর্যন্ত চলে। যেখানে ১৭ জন শিল্পী অংশগ্রহণ করেছেন। কর্মশালাটি ৫ দিন ৫ টি ভিন্ন স্পটে সম্পন্ন হবে।

দাগ আর্ট স্টেশনের সমন্বয় পরিষদের সদস্য নাসির আহমেদ প্রেস নারায়ণগঞ্জকে জানান, `মূলত আমাদের কর্মশালা সকলের জন্য উন্মুক্ত রাখা হয়েছে। এখানে নতুন পর্যায়ের শিক্ষানবীশ থেকে শুরু করে ভালো মানের কাজ করতে জানেন এমন শিল্পীরাও অংশগ্রহণ করেছেন। আমাদের কর্মশালার বিশেষত্ব হলো, এখানে কোনো প্রশিক্ষক নেই। যারা অভিজ্ঞ তারা যখন শিক্ষানবীশদের পাশে বসে কাজ করেন তখন নতুনরা তার কাজের ধরণ থেকেই শিখে নেয়। শিক্ষা গ্রহণের ধরণটা একেকজনের একেক রকম তাই সকলের জন্যই এটা উন্মুক্ত। আবার নতুনদের কিছু কিছু ক্ষেত্রে হাতে কলমেও কাজ দেখিয়ে দেন এখানে অংশ নেয়া শিল্পীগণ।`

তিনি আরও জানান, `আমরা যে স্লোগানটিকে সামনে নিয়ে পথচলা শুরু করেছি তা হলো- “শিল্প ও শিল্পীর সাথে সাধারণ মানুষের মেলবন্ধন ঘটানো” আর আমাদের কর্মশালাটি তারই একটি অংশ। আমাদের কর্মশালাটি মুক্ত পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়। ফলে শিল্পী কেমন করে একটি ছবি আঁকে তা দেখতে অনেক মানুষই ভীড় করে আমাদের চারপাশে। যখন ছোট বাচ্চাগুলো আমাদের ছবি আঁকতে দেখে, ছবি আঁকার প্রতি তারও একটি পজেটিভ ধারণা তৈরি হয়। পাশাপাশি সেও কখনও না কখনও আঁকতে চেষ্টা করে। এটাই আমাদের সাফল্য।

তিনি আরও বলেন, `তাছাড়া, প্রতি সপ্তাহে আমারা একটি ছবির হাঁটের আয়োজন করি। যেখানে স্বল্পমূল্যে আমাদের আঁকা ছবিগুলো বিক্রি করা হয়। আমাদের কর্মশালায় আঁকা ছবিগুলোকে সেই ছবির হাঁটের রসদও বলতে পারেন।`

প্রসঙ্গত, প্রতি শুক্রবার বিকেলে নগরীর আলী আহমেদ চুনকা পাঠাগার প্রাঙ্গণে দাগ আর্ট স্টেশনের উদ্যোগে একটি ছবির হাটের আয়োজন করা হয়।

সব খবর
শিল্প ও সাহিত্য বিভাগের সর্বশেষ