সোমবার ২১ অক্টোবর, ২০১৯

তোলারাম কলেজে সাংবাদিককে মারধরের ঘটনায় ছাত্র ফেডারেশনের নিন্দা

রবিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১৮:২৩

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: সরকারি তোলারাম কলেজের ভেতরে সাংবাদিক সৌরভ হোসেন সিয়ামের উপর ছাত্রলীগের ক্যাডারদের অতর্কিত হামলার ঘটনায় প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছে ছাত্র সংগঠন জেলা ছাত্র ফেডারেশন।

রোববার (২৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে ছাত্র ফেডারেশনের নেতৃবৃন্দ এ নিন্দা জানান।

সাংবাদিক সৌরভের উপর হামলার ঘটনায় নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে ছাত্র ফেডারেশন সভাপতি শুভ দেব বলেন, ‘ছাত্র সংসদের নামে ক্যাম্পাসের ভেতরে এক ভয়ানক টর্চার সেল গঠন করেছে কলেজ শাখা ছাত্রলীগ। এতোদিন ছাত্রদের সংসদে ডেকে নিয়ে শারীরিকভাবে নিপীড়ন করা ছিলো তাদের দৈনন্দিনকার ঘটনা। এই নিপীড়নের ঘটনা দিনে দিনে ছড়িয়ে পড়েছে সমগ্র ক্যাম্পাস জুড়ে। এখন ডিপার্টমেন্টের ভেতরে ঢুকে ছাত্রদের উপর হামলা করতে নুন্যতম কুন্ঠাবোধ করছে না ছাত্রলীগ। অথচ, এই বিষয়ে কলেজ প্রশাসন বরাবরই নিরব ভূমিকায় অবতীর্ণ। আমরা ছাত্র ফেডারেশন থেকে শিক্ষাঙ্গনের গণতান্ত্রিক ও ভয়ভীতিমুক্ত পরিবেশের কথা অনেক আগে থেকেই বলে আসছি। পূর্বেও তোলারাম কলেজের এই অগণতান্ত্রিক পরিস্থিতি ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের প্রতিবাদ করায় ছাত্র ফেডারেশনের দুই সাবেক সভাপতি রফিকুল বাপ্পি, জাহিদ সুজনসহ তৎকালীন কলেজ শাখার অনেক নেতাকর্মীই কলেজের ভেতরে শারীরিকভাবে হামলার শিকার হয়েছেন। তবু আমরা এই সকল হামলা-নিপীড়নের বিপরীতে দাঁড়িয়ে লড়াই-সংগ্রাম অব্যাহত রেখেছি।’

তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করে আরো বলেন, ‘শুধু সাংবাদিক কেনো ক্যাম্পাসের ভেতর কোন বিরোধী মতকেই তারা সহ্য করতে নারাজ। গত কিছুদিন আগে ছাত্রদলের এক নেতাকে কলেজে মারধর করে তাকে ক্যাম্পাস থেকে বের করে দেওয়ার ঘটনাই যার বড় প্রমাণ। আমরা এই ঘটনারও তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। অবিলম্বে, সাংবাদিক সৌরভ হোসেন সিয়ামের উপর চিহ্নিত হামলাকারী সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও বিচার দাবি করছি এবং সরকারি তোলারাম কলেজসহ নারায়ণগঞ্জের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গণতান্ত্রিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে ছাত্র সমাজকে ঐক্যবদ্ধ হবার আহবান জানাচ্ছি।’

প্রসঙ্গত, গতকাল শনিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) প্রেস নারায়ণগঞ্জের চীফ রিপোর্টার সৌরভ হোসেন সিয়াম তার ৩য় বর্ষের ফরম ফিলআপের জন্য তোলারাম কলেজ গেলে তার উপর অতর্কিত হামলা চালায় ছাত্রলীগ। ছাত্রলীগের মহানগর ও কলেজ শাখার নেতা পিয়াস প্রধান, শেখ হাবিবুর রহমান তামিম, শাহরিয়ার পরশ, মেহেদি প্রিন্স, স্বার্থক তোফার নেতৃত্বে অজ্ঞাতনামা আরো ১০/১২ জন এই হামলায় যুক্ত ছিলো। হামলার এক পর্যায়ে পুলিশের কাছে নাম না প্রকাশ করার কথা বলে তাকে প্রাণনাশেরও হুমকি দেয় হামলাকারীরা। গত বছরে এপ্রিল মাসের ২৩ তারিখে ছাত্র সংসদের ভেতর আটকে রেখে একই সন্ত্রাসীরা সাংবাদিক সৌরভকে বেধড়ক মারধর করে।

সব খবর
শিক্ষাঙ্গন বিভাগের সর্বশেষ