বুধবার ১১ ডিসেম্বর, ২০১৯

ডিসির মঞ্চে নাশকতা ও সন্ত্রাসের অর্থ যোগানদাতা!

শুক্রবার, ৯ আগস্ট ২০১৯, ১৭:৫০

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নাশকতা পরিকল্পনা ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনার অর্থ যোগানদাতা হিসেবে পুলিশের করা মামলার আসামিকে এক অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসকের সাথে মঞ্চে দেখা গেছে। এই ঘটনায় চলছে ব্যাপক আলোচনা সমালোচনা।

গত ৮ আগস্ট বিকেলে নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় লঞ্চঘাটে বিআইডব্লিউটিএ এর নারারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের ঈদ সেবা সপ্তাহ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন নাশকতা পরিকল্পনা ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনার অর্থ যোগানদাতা হিসেবে পুলিশের করা মামলার আসামি মো. বদিউজ্জামান বাদল। অনুষ্ঠানে একই মঞ্চে ডিসির ডান পাশের চেয়ারে তাকে বসতে দেখা গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, জামায়াত শিবিরের অন্যতম অর্থ যোগানদাতা নারায়ণগঞ্জ লঞ্চ মালিক সমিতির সভাপতি মো. বদিউজ্জামান বাদল। বিভিন্ন সময় তিনি জামায়াতের কার্যক্রমে অর্থ জোগান দিয়ে আসছেন। জামায়াতের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনার অর্থ যোগানদাতা হিসেবে মামলাও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

চলতি বছরের ২২ ফেব্রুয়ারি রাতে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) উপ পরিদর্শক (এসআই) প্রকাশ চন্দ্র সরকার বাদী হয়ে নাশকতা করার পরিকল্পনার অভিযোগে নারায়ণগঞ্জ লঞ্চ মালিক সমিতির সভাপতি মো. বদিউজ্জামান বাদল, মহানগর জামায়াতের আমির মাওলানা মাইনুদ্দিন, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা জামায়াতের আমির কাউসার আহম্মেদ, হেলিকপ্টার হুজুর খ্যাত এনায়েতউল্লাহ আব্বাসী জৈনপুরীর বড় ভাই এমদাদউল্লাহ আব্বাসীসহ ১৬ জন নামীয় ও অজ্ঞাত আরো ১৫-২০ জনের বিরুদ্ধে সদর মডেল থানায় মামলাটি দায়ের করেন। এই মামলায় আটককৃত ১০ জনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। এই মামলায় নাশকতা পরিকল্পনা ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনার অর্থ যোগানদাতা হিসেবে নারায়ণগঞ্জ লঞ্চ মালিক সমিতির সভাপতি মো. বদিউজ্জামান বাদলকে আসামি করা হয়।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়, নাশকতা করার পরিকল্পনার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালায় জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। শুক্রবার সকালে নবীগঞ্জ ঘাটে নোঙর করা একটি লঞ্চ থেকে নাশকতা করার পরিকল্পনাকালে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা জামায়াতের আমির কাউসার আহম্মেদ, এমদাদউল্লাহ আব্বাসীসহ ১০ জনকে আটক করা হয়। এ সময় বাকি আসামিরা পালিয়ে যায়। এ সময় ২টি যাত্রীবাহী লঞ্চ, ৩টি জিহাদী বই ও ৩টি বিভিন্ন কোম্পানির মুঠোফোন জব্দ করে ডিবি।

এদিকে সচেতন মহলের মতে, জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন নারায়ণগঞ্জে নতুন এসেছেন। পাশাপাশি নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের যুগ্ম পরিচালক শেখ মাসুদ কামালও সম্প্রতি যোগদান করেছেন নারায়ণগঞ্জে। নাশকতা মামলার আসামির বিষয়টি তাদের জানা না থাকলেও আয়োজকদের অন্যদের জানার কথা। সে ক্ষেত্রে তাদের আরও সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত ছিল। বিতর্কিত কাউকে না রেখে নারায়ণগঞ্জ লঞ্চ মালিক সমিতির অন্য নেতাকেও অনুষ্ঠানে রাখা যেতো মন্তব্য অনেকের।

এ ব্যাপারে বিআইডব্লিউটিএ নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দরের যুগ্ম পরিচালক শেখ মাসুদ কামাল বলেন, আসলে আমি এখানে নতুন এসেছি। আমি বিষয়টা জানতাম না। আগামী কোন অনুষ্ঠানে বিতর্কিত কাউকে অতিথি করা হবে না। এ বিষয়টি আমরা নজরে রাখবো।

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ