বুধবার ২১ এপ্রিল, ২০২১

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি গণমাধ্যম কর্মীদের

মঙ্গলবার, ২ মার্চ ২০২১, ১৮:০৪

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জে কর্মরত চারজনসহ সারাদেশে গণমাধ্যম কর্মীদের নামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (২ মার্চ) দুপুরে চাষাঢ়ায় নারায়গঞ্জ কেন্দ্রীয় পৌর শহীদ মিনারে ‘নারায়ণগঞ্জের সর্বস্তরের সাংবাদিক সমাজ’র ব্যানারে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি জানিয়েছেন উপস্থিত গণমাধ্যম কর্মীরা।

নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি খন্দকার শাহ্ আলমের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন ক্রাইম রিপোর্টার্স এসোসিয়েশনের (ক্র্যাব) সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন আরিফ, মানবজমিনের স্টাফ রিপোর্টার বিল্লাল হোসেন রবিন, কালের কণ্ঠের জেলা প্রতিনিধি দিলীপ কুমার মন্ডল, বন্দর প্রেস ক্লাবের সভাপতি শাহ্ আলী খান পিন্টু, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা প্রেস ক্লাবের সভাপতি হোসেন চিশতী শিপলু, আড়াইহাজার থানা প্রেস ক্লাবের সভাপতি মাসুম বিল্লাহ, ফতুল্লা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম, নারায়ণগঞ্জ সিটি প্রেসক্লাবের সভাপতি সাইফুল্লাহ মাহমুদ টিটু, জেলা ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মনিরুল আলম সবুজ প্রমুখ। সভা সঞ্চালনা করেন দেশ রূপান্তর পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি মোবারক হোসেন কমল।

২০১৭ সালের এপ্রিলে নারায়ণগঞ্জে কর্মরত ইত্তেফাক পত্রিকার প্রতিনিধি হাবিবুর রহমান বাদল, যুগান্তরের প্রতিনিধি রাজু আহমেদ, আনন্দ টেলিভিশনের প্রতিনিধি সিফাত আল রহমান ও ফটো সাংবাদিক মাহমুদ হাসান কচির বিরুদ্ধে তথ্য ও প্রযুক্তি আইনে মামলা করেন মহানগর যুবলীগের সহসভাপতি আলী রেজা রিপন। এই মামলাসহ সারাদেশে গণমাধ্যমকর্মীদের বিরুদ্ধে করা সকল মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয় প্রতিবাদ সভায়।

ক্র্যাবের সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন আরিফ বলেন, ‘পূর্বে তথ্য ও প্রযুক্তি আইন নিয়ে সমালোচনা হয়েছিল। পরে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন করা হলো। আমরা আইনের বিরুদ্ধে নয়, আইনের অপপ্রয়োগের বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছি। সংবিধানে বাকস্বাধীনতা ও মত প্রকাশের স্বাধীনতার কথা বলা হয়েছে। কিন্তু ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন সেই স্বাধীনতা ক্ষুন্ন করে। সংবিধান ও ৩২ ধারা সাংঘর্ষিক। এই আইন দুর্নীতিবাজদের রক্ষাকবচ হিসেবে দুর্নীতি করার জন্য উৎসাহ জোগাচ্ছে। এই আইন অবিলম্বে প্রত্যাহার অথবা অসঙ্গতিগুলো সংশোধনের দাবি জানাই।’

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেফতার হয়ে কারাবন্দী অবস্থায় মৃত্যুবরণ করা লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুতে নিন্দা জানান এই সাংবাদিক নেতা। তিনি এই মৃত্যুর সুষ্ঠু তদন্ত ও একই মামলায় গ্রেফতার কার্টুনিস্ট কিশোরসহ সকলের মুক্তির দাবি জানান।

মানববজমিনের বিল্লাল হোসেন রবিন বলেন, ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মতো কালো আইনের বিরুদ্ধে সাংবাদিকরা রাস্তায় নেমেছে। গণমাধ্যমের কণ্ঠরোধ কখনই করা যায়নি, যাবেও না। সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে করা হয়রানিমূলক সকল মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানাই।’
আইনের অপপ্রয়োগ বন্ধ ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবি জানান বন্দর প্রেস ক্লাবের সভাপতি শাহ্ আলী খান পিন্টু। সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে সকল মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান কালের কণ্ঠের প্রতিনিধি দিলীপ কুমার মন্ডল।

সারাদেশে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দিয়ে যেসকল সংবাদ কর্মীকে হয়রানি করা হচ্ছে সকল মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে সভাপতির বক্তব্যে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি খন্দকার শাহ্ আলম বলেন, ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের ঘোষণা করার জন্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যার প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানাই। একই সাথে সাংবাদিকদের বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার উপর জোর দেওয়ার দাবি জানাই।’

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ