সোমবার ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৯

জেলা ছাত্রদলে বিভক্তি

বুধবার, ৯ অক্টোবর ২০১৯, ২১:৩৯

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: বিএনপির ভ্যানগার্ড খ্যাত জেলা ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের মধ্যে চলছে অভ্যন্তরীন কোন্দল। সভাপতি মশিউর রহমান রনি ও সাধারণ সম্পাদক খায়রুল ইসলাম সজীবকে কেন্দ্র করে নেতাকর্মীরা দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে গেছেন। বিভক্তির প্রমাণ মিলেছে বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার প্রতিবাদে জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে। এই কর্মসূচিতে জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক খায়রুল ইসলাম সজীব ও তার অনুসারীরা উপস্থিত না হয়ে আলাদা কর্মসূচি পালন করেছেন।

দীর্ঘদিন যাবৎ ক্ষমতায় নেই বিএনপি। টানা তিন মেয়াদে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায়। বিএনপি বেশ কোনঠাসা হয়ে পড়েছে। তার উপরে নেতাকর্মীদের মধ্যে রয়েছে দলীয় কোন্দল ও বিভক্তি। সেসব কাটিয়ে উঠে চমক দেখিয়েছে ছাত্রদল। বুধবার (৯ অক্টোবর) সকালে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের গলিতে আবরার হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিলে একত্রিত হয়েছে জেলা ও মহানগর ছাত্রদল। তবে এই কর্মসূচিতে মুদ্রার ওপিঠও দেখা গেছে। মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকসহ কমিটির শীর্ষস্থানীয় অনেক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থাকলেও জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক, সিনিয়র সহ সভাপতি ও যুগ্ম সম্পাদক পদধারী নেতারা অনুপস্থিত ছিলেন। দীর্ঘদিন যাবৎ জেলা ছাত্রদলে বিভক্তির যে গুঞ্জন ছিল তা এই সমাবেশে প্রমাণ মিলেছে।

জেলা ও মহানগর ছাত্রদল নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে আবরার হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করলেও সাধারণ সম্পাদক খায়রুল ইসলাম সজীবের নেতৃত্বে জেলা ছাত্রদলের একাংশ সোনারগাঁয়ের কাঁচপুরে বিক্ষোভ মিছিল করেন।

জেলা ছাত্রদলের একাধিক নেতা জানান, জেলা ছাত্রদলের সভাপতির প্রতি নেতাকর্মীরা ক্ষুব্দ। কমিটি ঘোষণার এক বছর পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত পূর্ণাঙ্গ কমিটি দিতে পারেনি সে। এমনকি থানা কমিটিগুলো নিয়েও গড়িমসি করছেন তিনি।

এদিকে সভাপতি রনির প্রতি নেতাকর্মীদের এই ক্ষোভের সুযোগ নিয়েছেন সাধারণ সম্পাদক খায়রুল ইসলাম সজীব। রনির বিরাগভাজন নেতাকর্মীদের নিজের দিকে টেনে নিয়েছেন।

সভাপতি-সেক্রেটারির এই কোন্দলের প্রমাণ পাওয়া যায় মশিউর রহমান রনির কেন্দ্রীয় ছাত্রদলে সেক্রেটারি পদে নির্বাচন নিয়েও। মশিউর রহমান রনি নারায়ণগঞ্জ থেকে একমাত্র ক্যান্ডিডেট হিসেবে নির্বাচন করেন। কিন্তু মনোনয়নপত্র কেনা থেকে শুরু করে নির্বাচন পর্যন্ত সভাপতির জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ও তার অনুসারীদের কাউকে দেখা যায়নি। এমনকি ফেসবুক প্রচারণা থেকেও বিরত ছিলেন তারা।

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ