বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

ছেলে ধরা গুজব: গণপিটুনিতে যুবক নিহত, নারী আহত (ভিডিও)

শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯, ১৪:৪৪

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: সিদ্ধিরগঞ্জে দুই ঘন্টার ব্যবধানে পৃথক দুই স্থানে ছেলে ধরা সন্দেহে দুইজনকে গণপিটুনি দিয়েছে স্থানীয়রা। এ ঘটনায় এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। অন্যদিকে শারমিন (২০) নামে এক নারী আহত অবস্থায় নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এ ঘটনায় সিদ্ধিরগঞ্জে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

শনিবার (২০ জুলাই) সকাল ৮টায় সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজির আলামিন নগর এলাকার রাজমিস্ত্রী সোহেলের সাত বছরের মেয়ে সাদিয়াকে অপহরণ করার সন্দেহে অজ্ঞাত এক যুবককে আটক করে গণপিটুনি দেয় এলাকাবাসী। পুলিশ গুরুতর অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এই ঘটনার দুই ঘন্টা পর সোয়া ১০টার দিকে মিজমিজির শাপলা চত্বর এলাকায় ফাইজুল ইসলাম লাবিব নামে চার বছরের শিশুকে অপহরণ করার সন্দেহে এক নারীকে গণপিটুনি দেয়া স্থানীয়রা। পরে আহতাবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে পুলিশ। আহতকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় পুলিশকে বাধা দেয় স্থানীয়রা। এ সময় পুলিশের সাথে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশের গাড়িকে উদ্দেশ্য করে ইট-পাটকেল ছুড়ে মারতে থাকেন স্থানীয়রা।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ছেলে ধরার বিষয়টি সম্পূর্ণটাই গুজব। সারাদেশে ছেলে ধরা গুজবের শিকার হয়েছেন ওই যুবক ও নারী।

যুবককে গণপিটুনির ঘটনাস্থল থেকে ফিরে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) শাখাওয়াত হোসেন জানান, স্থানীয়রা যে বাচ্চা মেয়েটিকে ধরেছে বলেছিল তার অভিভাবক জানায়, তার মেয়ে স্কুলে ক্লাস করছে। মেয়েটি স্থানীয় আইডিয়াল কিন্ডার গার্ডেনের ছাত্রী। প্রাথমিকভাবে ছেলে ধরার ব্যাপারে কোন সত্যতা মেলেনি। নিহত যুবক গুজবের শিকার বলে ধারণা হচ্ছে।

অন্যদিকে ফাইজুল ইসলাম লাবিবের নানি খাদিজা আক্তার জানান, ছেলে ধরা সন্দেহে আটক নারী প্রথমে তার ফ্ল্যাটে ঢোকেন। পরে বিভিন্ন অসংলগ্ন কথা বলেন। সে এই ফ্ল্যাটে আগে ভাড়া ছিল বলে জানান। কিন্তু এই ফ্ল্যাটে তারাই প্রথম ভাড়াটিয়া। পরে তাকে সন্দেহ হলে ভবনের নিচে যাওয়া হলে এলাকাবাসী তাকে ছেলে ধরা সন্দেহে গণপিটুনি দিয়ে স্থানীয় একটি স্কুলের সামনে বেঁধে রাখেন। পরে পুলিশ খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

এদিকে খাদিজা আক্তারের পাশের ফ্ল্যাটের এক নারী জানান, সে নিজেকে পুলিশ, মন্ত্রী, এমপি বলে পরিচয় দিচ্ছিলো। ওই নারীর কথাবার্তায় তাকে মানসিক ভারসাম্যহীন বলে মনে হয়েছে।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ