মঙ্গলবার ১৯ মার্চ, ২০১৯

চালকদের খাম খেয়ালিপনায় বাড়ছে সড়ক দূর্ঘটনা

সোমবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১৭:৪৬

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: প্রতিদিনই দেশের কোন না কোন জেলায় ঘটছে সড়ক দূর্ঘটনা। এতে করে প্রাণ হারাচ্ছে কেউ। কেউ পঙ্গুত্ব বরণ করে জীবন কাটাচ্ছে। আর এসব দূর্ঘটনা ঘটছে বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই চালকদের খাম খেয়ালিপনায়। নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন রুটে চলাচলকারী গণপরিবহনের বেশিরভাগেরই নেই ফিটনেস। তার ওপর দক্ষ চালক ছাড়া হেলপার দিয়েই পরিচালিত হয় বেশিরভাগ গণপরিবহণ। আবার অনেক সময় দেখা যায় চালকরা গাড়ি চালাতে গিয়ে দীর্ঘক্ষণ মোবাইল ফোনে কথা বলতে থাকে। যার কারনেও অনেক সময় দূর্ঘটনা ঘটে থাকে। এমনি একটি ঘটনা জানা যায় এক বাস যাত্রীর কাছ থেকে।

রবিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) নারায়নগঞ্জ কোর্ট এলাকা থেকে বন্ধু পরিবহনের একটি বাসে করে সাইনবোর্ড যাওয়ার জন্য রওনা হয় জনৈক এক যাত্রী। গাড়িতে বসার মতো আসন খালি না থাকায় তিনি চালকের বাম পাশে দাড়ায়। নতুন কোর্ট এলাকা থেকে গাড়িটি সাইনবোর্ডের দিকে যাওয়ার সময় জেলখানা এলাকায় আসলে চালকের মোবাইলে একটি ফোন আসে। সে সময় চালক ডান হাতে তার মোবাইলটি রিসিভ করে এবং বাম হাত দিয়ে গিয়ার পরিবর্তন করেন। তখন তার গাড়ির বা পাশ দিয়ে বেশ দ্রুত গতিতে কিছু গাড়ি যাচ্ছিলো। এসময় বন্ধু পরিবহনের চলতি গাড়িটি কিছুটা বাম দিয়ে টার্ন নিয়ে একটি প্রাইভেটকারের সাথে ধাক্কা লাগার উপক্রম হয়। তখন সাথে সাথে চালক বাম হাতে কোন রকমে গাড়িটি নিয়ন্ত্রণ করেন। এ যাত্রায় কোন রকমে প্রাইভেটকার ও বাসের যাত্রীরা দূর্ঘটনা থেকে রক্ষা পায়। কিন্তু এমন অসতর্কতার জন্য প্রায় সময়ই অনেক বড় বড় দূর্ঘটনার ঘটনা ঘটে থাকে।

সম্প্রতি রাজধানীর এয়ারপোর্ট রোডে সড়ক দূর্ঘটনায় শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় সড়কে শৃঙ্খলা রোধে আন্দোলন করে সারা দেশের স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীরা। কিন্তু সেই আন্দোলন চলাকালীন এবং তার কিছুদিন সড়কে মোটামুটি নিয়ম মেনে চলে চালক ও পথচারীরা। কিন্তু আস্তে সময় পরিবর্তনের সাথে সাথে সেই সব নিয়মের কোন তোয়াক্কাই এখন আর নাই। সাধারণ গণপরিবহনের যাত্রীদের এখন একটাই দাবী গণপরিবহণ চালকদের স্বেচ্ছাচারিতা বন্ধ করে সচেতন হয়ে সতর্কতার সাথে যাতে গাড়ি চালায়। তাহলে সড়ক দূর্ঘটনা অনেকাংশে কমে যাবে।

সব খবর
মতামত বিভাগের সর্বশেষ