মঙ্গলবার ১০ ডিসেম্বর, ২০১৯

চাকরির প্রলোভনে কিশোরীকে ধর্ষণ ও যৌনকর্মে বাধ্য করার অভিযোগ

শুক্রবার, ৫ জুলাই ২০১৯, ১৮:১৯

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

গ্রেফতারকৃত হেলেনা বেগম

গ্রেফতারকৃত হেলেনা বেগম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: সিদ্ধিরগঞ্জে গার্মেন্টসে চাকুরি দেওয়ার কথা বলে আদমজী ইপিজেডের সামনে থেকে ১৬ বছরের এক কিশোরীকে অপহরণ করে ধর্ষণ ও যৌনকর্ম করতে বাধ্য করার অভিযোগে ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) রাতে রাজধানী ঢাকার মুগদা এলাকা থেকে ৯দিন পর ভুক্তভোগীকে উদ্ধারসহ ঘটনার প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় রাতেই ভুক্তভোগীর দুলাভাই বাদী হয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। পরে শুক্রবার (৫ জুলাই) দুপুরে প্রধান আসামি হেলেনাকে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ করেছে পুলিশ।

মামলা সূত্রে জানা যায়, গত ২৫ জুন সকাল ৭টায় আদমজী ইপিজেডের সামনে থেকে গার্মেন্টসে চাকুরী দেওয়ার কথা বলে ফুসলিয়ে বাদীর শ্যালিকাকে অপহরণ করে নিয়ে যায় মামলার দুই নম্বর আসামি মনির হোসেন জামাল। এরপর থেকে আর ওই কিশোরী বাসায় ফিরেনি। মনিরকেও খুঁজে পাওয়া যায়নি। এ বিষয়ে ২৮ জুন সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হয়।

জিডির সূত্র ধরে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক শামীম আহমেদ গত বৃহস্পতিবার রাতে রাজধানী ঢাকার মুগদা থানার মদিনাবাগ এলাকার ৩৮/ক আবদুল জব্বারের বাড়ির ভাড়াটিয়া হেলেনা বেগমের বাসা থেকে অপহৃত কিশোরীকে উদ্ধার করেন। পরে উদ্ধারকৃত কিশোরী পুলিশকে জানায়, তাকে অপহরণ করার পর হেলেনার বাসায় আটক রেখে প্রথমে মনির তাকে ধর্ষণ করে। পরে আরো কয়েক জন দফায় দফায় ধর্ষণ করে। হেলানা একজন যৌনকর্মী৷ মনির কিশোরীকে যৌনকর্মী হেলেনার কাছে রেখে যৌনকর্মে বাধ্য করিয়েছে।

এ ঘটনায় পিরোজপুর জেলার মঠবাড়ীয়া থানার উত্তর মিঠাখালী এলাকার বাবুল সরদারের স্ত্রী হেলেনা বেগম, বরগুনা জেলা সদরের নলটোনা ইউপি এলাকার ইউসুফের ছেলে মনির হোসেন জামাল এবং তাদের সহযোগী নানা কারফু, পনির, নাঈম, ইমন, মাজহারুল ও দেবাাশীষকে আসামি করে ওই কিশোরীর ভগ্নিপতি বাদী হয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেন।

এ বিষয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শামীম আহমেদ জানান, ভিকটিমকে অপহরণ করে ধর্ষণ ও পতিতাবৃত্তিতে বাধ্য করার অভিযোগে ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। প্রধান আসামিকে গ্রেফতার করে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতার করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ