রবিবার ১৬ মে, ২০২১

চট্টগ্রামে গুলিতে শ্রমিক মৃত্যুর ঘটনায় তদন্তের দাবি গণসংহতির

সোমবার, ১৯ এপ্রিল ২০২১, ১১:৪২

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে এস এস পাওয়ার লিমিটেডের কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রে শ্রমিকদের বেতন ভাতার দাবিতে বিক্ষোভে পুলিশের গুলিতে ৫ শ্রমিকের নিহতের ঘটনায় সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের দাবি করেছে গণসংহতি আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ জেলা। শনিবার (১৭ এপ্রিল) রাতে সংগঠনের সমন্বয়কারী তরিকুল সুজন ও নির্বাহী সমন্বয়কারী অঞ্জন দাস এক বিবৃতিতে এ দাবি জানান।

তরিকুল সুজন এই ঘটনার বিচার দাবি করে বলেন, চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে ৫ জন শ্রমিককে গুলি করে হত্যা করেছে পুলিশ। বকেয়া বেতনের দাবি করায় পুলিশ শ্রমিকদের বিক্ষোভে গুলি চালিয়েছে। করোনাকালে বিদ্যুৎ প্রকল্পের শ্রমিকরা জীবন ও জীবিকা দুই-ই হারালো। এই নিষ্ঠুরতা ও হত্যাকান্ডের দ্রুত তদন্ত ও বিচার হওয়া চাই। বর্তমান সরকার মানুষের সকল সহ্যের সীমাকে অতিক্রম করেছে। মানুষের সামান্যতম প্রতিবাদে পুলিশি নিপীড়ন এমনকি গুলি চালানোর মতো ঘটনা ঘটিয়েছে। অথচ প্রতিবাদ করার অধিকার দেশের প্রতিটি নাগরিকের সাংবিধানিক অধিকার। বাংলাদেশে বর্তমান সরকার যে ফ্যাসিবাদী শাসন কায়েম করেছে, তারই বড় নিদর্শন আজকে বাঁশখালীতে সংগঠিত হওয়া এই ঘটনা। এখন পর্যন্ত আমরা ৫ জনের মৃত্যুর সংবাদ জানতে পেরেছি। আরও বহু মানুষ আহত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। অথচ ২০১৬ সালেও পরিবেশ ধ্বংসকারী এই বিদ্যুৎ প্রকল্পের বিরূদ্ধে আন্দোলন করতে গিয়ে স্থানীয় ৪ জনকে গুলি করে হত্যা করে পুলিশ। যার কোন বিচার হয়নি। এমন একটি ব্যবস্থার মধ্যেই আমরা বসবাস করছি। রাষ্ট্রীয় বাহিনীকে কাজে লাগিয়ে রাষ্ট্রযন্ত্র ধারাবাহিকভাবে এই হত্যাযজ্ঞ চালিয়ে যাচ্ছে। আমরা এই অবস্থার বদল চাই।

অঞ্জন দাস এই ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার দাবি করে বলেন, আমরা অবিলম্বে সুষ্ঠ তদন্তের মাধ্যমে এই হামলার সাথে জড়িতদের গ্রেফতার ও বিচার দাবি করছি এবং এই চলমান ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ সংগ্রাম গড়ে তোলার আহ্বান জানাই। নিরবতা ভেঙ্গে মানুষ অচিরেই রাজপথে সোচ্চার হবে বলে আমরা আশা রাখি। আর এই সংগ্রামই বাংলাদেশকে একটি গণতান্ত্রিক রূপান্তরের দিকে নিয়ে যাবে বলে আমরা বিশ্বাস করি।

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ