রবিবার ২৯ মার্চ, ২০২০

ঘরে জমে থাকা গ্যাসের আগুনে দগ্ধ একজনের মৃত্যু

সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৪:১১

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার সাহেবপাড়া এলাকায় আগুনে দগ্ধ একই পরিবারের আটজনের মধ্যে নুরজাহান বেগম (৬০) নামের একজন মারা গেছেন।

সোমবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) বেলা সোয়া ১১টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

ঢামেক ক্যাম্প পুলিশের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর বাচ্চু মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, নিহতের মরদেহ ঢামেক হাসপাতাল মর্গে রাখা আছে।

এর আগে সোমবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। দগ্ধ অপর সাতজন হলেন- মো. কিরণ মিয়া (৪৫), মো. আবুল হোসেন (২৫), মো. হিরণ মিয়া (২৫), মুক্তা (২০), মো. কাওছার (১৬), আপন (১০) ও লিমা (৩)।

ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সাতজনের মধ্যে তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তারা হলেন- কিরণ (৭০% শতাংশ), আবুল হোসেন (৪৫% শতাংশ)ও কাওছার (২৫% শতাংশ)।

এর আগে ভোর সাড়ে ৫টার দিকে বদ্ধঘরে জমা হওয়া গ্যাসের আগুনে একই পরিবারের শিশুসহ আট জন দগ্ধ হয়েছেন।

দগ্ধ আটজন হলো- নুরজাহান (৬০), কিরণ (৪৩) হিরণ (২৫) ও তার স্ত্রী মুক্তা (২০) মেয়ে লিমা (৩), আবুল হোসেন (২২), কাওসার (১৬) এবং আপন (১০)।

দগ্ধের স্বজন ইলিয়াস জানান, শীতের কারণে সারা রাত ঘরের সব দরজা-জানালা বন্ধ ছিল। সেই সঙ্গে গ্যাসের চুলাও রাতে ঠিকমতো বন্ধ করা হয়নি বলে ধারণা করা হচ্ছে। চুলা ধরাতে দেশলাইয়ের কাঠি জ্বালানোর সঙ্গে সঙ্গে চার রুমে আগুন ছড়িয়ে পড়ে আট জনই দগ্ধ হন। পরে তাদের দ্রুত উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়।

আদমজী ইপিজেডের ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার মো. শাহজাহান জানান, ওই বাসায় গ্যাসের চুলা সারা রাত চালু থাকায় চারটি রুমে গ্যাস জমে ছিল। সকালে চুলা জ্বালানোর সঙ্গে সঙ্গে চার রুমে আগুন ছড়িয়ে পড়ে একই পরিবারের শিশুসহ আটজন দগ্ধ হন।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ