সোমবার ২১ অক্টোবর, ২০১৯

গ্যাস-বিদ্যুৎ নিয়ে সরকার তামাশা করছে: তরিকুল সুজন

শুক্রবার, ৫ জুলাই ২০১৯, ২২:২৬

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: জেলা গণসংহতি আন্দোলনের সমন্বয়কারী তরিকুল সুজন বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশকে বলেছেন মুক্তিযুদ্ধের দেশ, গণতন্ত্রের দেশ। অথচ তার লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না।দশ বছরে ৭ বার দাম বাড়ানো এটার নাম লুটপাট। বিদ্যুত, গ্যাস নিয়েও সরকার জনগণের সাথে তামাশা করছে।’

শুক্রবার (৫ জুলাই) বিকেলে চাষাঢ়ায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বাম গণতান্ত্রিক জোটের এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। আগামী রোববার (৭ জুলাই) গ্যাসের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে ডাকা দেশব্যাপী অর্ধবেলা হরতাল সফল করার লক্ষ্যে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে তরিকুল সুজন বলেন, ‘সরকার গায়ের জোরে ক্ষমতায় এসেছে, ফলে যা ইচ্ছা তাই করার নাম দিয়েছে শাসন ব্যবস্খা। তিতাসের ধরে নিয়েছে একটি পরিবার মাসিক ৮৮ ঘনমিটার গ্যাস ব্যবহার করবে এবং সে হিসেবে প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের মূল্য ৯ টাকা ১০ পয়সা এবং অন্যন্য চার্জ যুক্ত করে মাসিক বিল নির্ধারণ করেছে ৮৫০ টাকা। মাসিক বিল চুকিয়েও ঠিকভাবে আমরা গ্যাস পাচ্ছি না।’

তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশের আনাচে কানাচে খুন-খারাবি হচ্ছে। স্ত্রীর সামনে স্বামীকে কুপিয়ে হত্যা করা হচ্ছে। এটি বরগুনার কোন ঘটনা নয়, এটি বন্দরের ঘটনা, সোনারগাঁয়ের ঘটনা, আড়াইহাজারের ঘটনা। বাংলাদেশ একটি কোপাকুপির দেশে রূপান্তরিত হয়েছে। ২০১২ সালের ৯ই ডিসেম্বর যখন বিশ্বজিৎকে কোপানো হলো সরকার এর দৃষ্টান্তমুলক বিচার করলো না।দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতি তৈরি হল।ফলে তনু হত্যা-নুসরাত হত্যা-রিফাত হত্যা কোন হত্যারই বিচার হয় না।’

বাম জোটের এই নেতা বলেন, ‘আগে সিস্টেম লস হত ২% এখন হয় ১২%। সরকার জনগণের কাঁধে বন্দুক রেখে দেশ চালাচ্ছে। বাংলাদেশে ১০৬টি নতুন গ্যাসক্ষেত্র খননের পরিকল্পনা রয়েছে। বাপেক্সের গ্যাস ক্ষেত্র খননে বা উত্তোলনে খরচ হয় ৭০-৮০ কোটি টাকা আর বিদেশি কোম্পানি দিয়ে গ্যাস ক্ষেত্র খননে বা উত্তোলনে খরচ হয় ২৫০-৩০০ কোটি টাকা।বিদেশী কোম্পানীকে কাজ দিয়ে, প্রকল্পের ব্যয় বৃদ্ধি করছে ফলে স্বল্পদামে গ্যাস পাবার সম্ভাবনাও নষ্ট করছে’

তিনি বলেন, ‘ ৭ তারিখের হরতালটি হবে জনগণের হরতাল। জনগণ যদি ঐক্যবদ্ধ হয় তাহলে বাংলাদেশকে আমূলে পরিবর্তন করা সম্ভব। ৭ তারিখের হরতাল হবে জীবনের ও মান-সম্মানের হরতাল। আমরা সবাইকে ৭ই তারিখের হরতালে ঐক্যবদ্ধ ও সংগঠিত হওয়ার জন্য আহ্বান জানচ্ছি।’

সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন, সিপিবির কেন্দ্রীয় নেতা এড. মন্টু ঘোষ, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, জেলা সিপিবির সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক শিবনাথ চক্রবর্তী সিপিবির সদস্য বিমল কান্তি দাস, জেলা ছাত্র ফ্রন্টের সভাপতি সুলতানা আক্তার প্রমুখ।

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ