শুক্রবার ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

কিশোরী গণধর্ষণ মামলার আসামিরা ছাত্রলীগের কর্মী

বৃহস্পতিবার, ২৯ আগস্ট ২০১৯, ২১:৪৫

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: ফতুল্লায় কিশোরী গণধর্ষণ মামলার তিন আসামি ছাত্রলীগের কর্মী। দোকান থেকে সরিষার তেল কিনে বাড়ি ফেরার সময় আসামিরা কিশোরীর মুখে গামছা বেধে পাশের ঝোপে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ।

বুধবার (২৮ আগস্ট) রাতে ফতুল্লার রেল স্টেশন জোড়াপুল এলাকায় গণধর্ষণের ঘটনা ঘটে। পরদিন বৃহস্পতিবার সকালে নির্যাতিতার মা বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন।

আসামিরা হলো ফতুল্লার দাপা ব্যাংক কলোনী এলাকার মৃত সামাদ মিয়ার ছেলে শান্ত ওরফে তোতলা শান্ত (২৮), একই এলাকার মৃত নিজাম মিয়ার পুত্র শুভ (২৪), দাপা জোড়পুল এলাকার শাহীন উদ্দিনের পুত্র রাজন (২৮)। তারা সকলেই ছাত্রলীগের কর্মী। ছাত্রলীগের বিভিন্ন মিছিল, সভা, সমাবেশে তাদের দেখা গেছে।

মামলার বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, বুধবার রাত ৮টার ফতুল্লা জোড়াপুল এলাকার এক কিশোরী দোকান থেকে সরিষার তেল কিনতে যায়। তেল কিনে বাড়ি ফেরার পথে স্থানীয় বখাটে শান্ত, শুভ, রাজন কিশোরীর পথরোধ করে। এরপর কিশোরীকে পাশ^বর্তী একটি ঝোপে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে তারা পালিয়ে যায়।

এদিকে স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি আরফান মাহমুদ বাবুর ফুপাতো ভাই মোয়াজ্জেম বাবুর নেতৃত্বে ছাত্রলীগের মিছিলে সব সময় দেখা যায় ধর্ষণে অভিযুক্ত তিনজনকে। এছাড়াও ফতুল্লা থানা সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা ফরিদ আহম্মেদ লিটনের প্রতিটি মিছিলে অংশ নিতে দেখা গেছে তাদের। এলাকায় মোয়াজ্জেম বাবু ও আরফান মাহমুদ বাবুর ঘনিষ্ঠ হিসেবেও বেশ পরিচিতি রয়েছে তাদের। তাদের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসা থেকে শুরু করে রয়েছে নানা অভিযোগ।

এদিকে গণধর্ষণ মামলায় অভিযুক্ত কাউকে এখন পর্যন্ত গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ। এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসেন বলেন, ‘কিশোরীর মা বাদী হয়ে ৪ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছে। তদন্তের পর বিস্তারিত বলা যাবে। অপরাধীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।’

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ