শনিবার ২০ জুলাই, ২০১৯

এসপিকে অভিযোগ করেও হামলার শিকার সিদ্ধিরগঞ্জের বৃদ্ধা

মঙ্গলবার, ১৪ মে ২০১৯, ২১:৩৮

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নিজের বসত বাড়ি রক্ষার জন্য আইনের আশ্রয় নিয়েও তার প্রতিকার পাচ্ছেন না সিদ্ধিরগঞ্জের এক বৃদ্ধা ও তার পরিবার। এ বিষয়ে ওই বৃদ্ধার ছেলে নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপারের কাছেও লিখিত অভিযোগ করেছে। এর পরেও ওই বৃদ্ধার পরিবারের ওপর বারবার হামলা করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ পরিবারটির৷

পুলিশ সুপারের বরাবর বৃদ্ধা অহিতুন নেছার ছেলে মোফাজ্জল হোসেন আনোয়ারের করা লিখিত ওই অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানা যায়, সিদ্ধিরগঞ্জের গোদনাইলের পশ্চিম এনায়েত নগরের বাসিন্দা বৃদ্ধা অহিতুন নেছা। অহিতুন নেছা তার মা (বর্তমানে মৃত) মালেকা বেগমের নিকট হতে ২০০১ সনে ৩ শতাংশ ভরাট ভূমির মালিক হয়। তারপর থেকে সেই জমিতে টিনসেড বসত বাড়ি নির্মাণ করে স্বামী-সন্তানদের নিয়ে বসবাস করে আসছে। কিন্তু ২০০৯ সালের দিকে অহিতুন নেছার ওই তিন শতাংশ জমির মধ্যে থেকে খালি এক শতাংশ জায়গায় তার ভাই মোবারক হোসেন, মোবারক হোসেনের ছেলে মমিনুল আলম পূষণ, এবং মোবারকের স্ত্রী পপি বেগম জোরপূর্বক একটি দোচালা ঘর নির্মাণ করে। এ বিষয়ে অহিতুন নেছা তখন প্রতিবাদ জানালে ভাই মোবারক হোসেন ঘরটি সরিয়ে নিবে বলে সময় চায়। কিন্তু দীর্ঘদিন অতিবাহিত হওয়ার পরও সেই ঘরটি আর সরিয়ে নেয় নি মোবারক হোসেন ও তার পরিবার। দীর্ঘ নয় বছর পর আবারও চলতি বছরের ১০ মার্চ অহিতুন তার জায়গা হতে ঘরটি পুনরায় সরিয়ে নিতে বলে।

এরই প্রেক্ষিতে গত ২৮ মার্চ মোবারক হোসেন, তার পুত্র পূষণ এবং মোবারকের স্ত্রী পপি বেগম ক্ষিপ্ত হয়ে অহিতুন নেছার বাড়িতে রোপনকৃত বিভিন্ন গাছপালা কেটে ফেলে এবং বাড়ির গোছলখানা ও রান্নাঘর ভেঙ্গে ফেলে। এবং ওই বাড়ির পয়ঃনিস্কাশনের জন্য মাটির ড্রেনিটিও মাটি ফেলে বন্ধ করে দেওয়া হয়। পরবর্তীতে আবার মে মাসের ১৬ তারিখে অহিতুন নেছার কাচপাকা টিনের ঘরটি শাবল, দা ও কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর ক্ষতি সাধন করে। এবং অহিতুন নেছা ও তার স্বামী কামরুল হককে মারধর করে মোবারক হোসেন, পুষন ও পপি বেগম। মারধরের একপর্যায়ে তাদের চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে অভিযুক্তরা অহিতুন নেছা ও তার পরিবারকে জায়গা থেকে উচ্ছেদের হুমকি প্রদান করে। যদি এই বিষয়ে কোন আইনের আশ্রয় নেওয়া হয় তাহলে অহিতুন নেছার একমাত্র ছেলে মোফাজ্জল হোসেন আনোয়ারের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি এমনি প্রাণে মেরে ফেলার হবে বলেও ভয়ভীতি প্রদর্শন করা হয় বলে অভিযোগটিতে উল্লেখ করা হয়।

অভিযোগটিতে আরো উল্লেখ করা হয়, মোবারক হোসেনের ছেলে মমিনুল আলম পূষণ স্থানীয়ভাবে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড করে বেড়ায় এবং মাদক সেবী হিসেবে পরিচিত। এমনি সে স্থানীয় মাদক ব্যবসায়িদের সাথে তার সম্পর্ক রয়েছে। এমতাবস্থায় ভুক্তোভূগি অহিতুন নেছা তার বসত বাড়ি রক্ষায় নারায়ণগঞ্জ আদালতে চলতি বছরের ১৬ এপ্রিল এবং ২৮ এপ্রিল দুটি মামলা করেছেন।

এদিকে অহিতুন নেছার ছেলে মোফাজ্জল হোসেন আনোয়ারের পুলিশ সুপারের বরাবর করা অভিযোগটির তদন্ত সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় পাঠানো হয়েছে বলে জানা যায়। অভিযোগটির তদন্ত কর্মকর্তা সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক হাফিজুর রহমান জানায়, অহিতুন নেছার ছেলে মোফাজ্জল হোসেন আনোয়ারের করা অভিযোগটি হাতে পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ