সোমবার ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

`এমপি সাব তিন টাকা করে ভাড়া নিতে কইছে’

শনিবার, ২৪ মার্চ ২০১৮, ২২:৫৫

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: গত ২০ মার্চ বন্দর ১নং খেয়াঘাটে এসে নারায়ণগঞ্জ ৫ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান নদী পারাপারে নৌকা ভাড়া জনপ্রতি ৫টাকা থেকে কমিয়ে ৩ টাকা করে করবার ঘোষণা দেন। ঘোষণাটি তিনি যাত্রী কিংবা বন্দরবাসীর দুর্ভোগ কিছুটা লাঘবের কথা চিন্তা করে দিলেও ফলাফল হয়েছে ভিন্ন। ভাড়া কমলেও এতে করে বন্দরবাসী তথা যাত্রীদের জীবনের ঝুঁকি বেড়েছে বহুগুন। এমটাই জানা গেছে রাহাত হোসেন খান নামক এক নাগরিকের ফেইসবুক পোস্ট থেকে। নিচে তার প্রেস নারায়ণগঞ্জের ফেইসবুক গ্রুপে করা পোস্টটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

 

Rahat Hossain Khan

কতটুকু স্বস্তিতে আছে বন্দর ১নং খেয়া ঘাটে পারাপারের যাত্রীরা। গত ২০ মার্চ থেকেই ভয়াবহ ভাবে ঝুঁকি নিয়েই নদী পার হচ্ছে বন্দরবাসী মানুষগুলো। নারায়ণগঞ্জ ৪ আসনের মাননীয় সাংসদ ঘোষণা দেওয়ার পর থেকে মাঝিরা ৩ টাকা করে ভাড়া ঠিকই নিচ্ছে তবে যাত্রী সংখ্যা বাড়িয়ে তাদের ভাড়া ঠিকই আদায় করে নিচ্ছে। প্রতি নৌকায় যেখানে ৫ টাকা করে ১০/১২ নিতো ৬০ টাকা ভাড়া করে এখনো ৬০/৬৫ টাকা ভাড়ার যাত্রী না উঠা পর্যন্ত নৌকার গুন খোলার নামই নেয় না। এক মাঝির সাথে কথা বলে জানা গেল ‘এমপি সাব তিন টাকা করে ভাড়া নিতে কইছে তার জন্য আমরা তিন টাকা করে নিচ্ছি। লোক সংখ্যা কত জন নিতে বলেছে সেটা জিজ্ঞেস করার পর বললো- সেটা বলে নাই। এই জন্যই ৩ টাকা করে নিচ্ছি ভাড়া তবে এক দেড় ঘন্টা অপেক্ষা করে একটা খেয়া বাইতে পারি তাই আমাদের না পোষালে নৌকা ছাড়বো কি করে?

এক কলেজ পড়ুয়া মেয়ে ( নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) এই অতিরিক্ত যাত্রীর জন্য নেমে গিয়ে অন্য নৌকায় উঠতে গেলে মাঝি তাকে বলে, যান যান কোন নৌকাই ছাড়বো না ২০ জনের নিচে’ এই বক্তব্যে সুস্পষ্ট ভাবে বুঝা যাচ্ছে যাত্রী সংখ্যা ২০ জন না হওয়া পর্যন্ত তথা ৬০ টাকা ভাড়া না হওয়া পর্যন্ত ছাড়বে না। অন্য দিকে ৬ থেকে ৭ মাসের এক জননী কে ও দেখা যায় গোলুইয়ের বাইরে বসে নদী পার হতে।

অন্য দিকে একজন সচারচর পারাপার হয় এমন একজন যাত্রী জানালেন, ‘এমপির এমন ঘোষণা আমাদের জন্য ভোগান্তিই সৃষ্টি করে হয় তিনি ভাড়া কমানোর ঘোষণা তুলে নিক আর না হয় যাত্রী সংখ্যা কমিয়ে দেওয়ার ঘোষণা দিয়ে নিয়ম অমান্যকারী মাঝিকে দৃষ্টান্তমূলক পানিশমেন্ট এর ব্যাবস্থা করুক, উনার ঘোষণা মাঝিরা মানে তবে তিনি সশরীরে থাকা অবস্থায় উনি চলে গেলেই ঘোষণার কার্যকারিতা শেষ’

ফ্রি ট্রলার ৫ টি চলার কথা থাকলো সেখানেও অনিয়মের শেষ নাই। স্বভাবিক আছে ২ টাকা হারে আদায় করা ট্রলারের চলাচল।

সব খবর
সোশাল মিডিয়া বিভাগের সর্বশেষ