মঙ্গলবার ৩১ মার্চ, ২০২০

এবার সিদ্ধিরগঞ্জের সেই চান মিয়ার বিরুদ্ধে দখলবাজির অভিযোগ

রবিবার, ১৫ মার্চ ২০২০, ২০:৪৬

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: কয়েকদিন পূর্বে নাসিকের ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ওমর ফারুকের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করেছিলেন নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকার চান মিয়া। এবার তার বিরুদ্ধেই দখলবাজির অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মোলন করেছেন এনামুল হক নামের স্থানীয় এক মুক্তিযোদ্ধা।

রোববার (১৫ মার্চ) বেলা সাড়ে এগারোটার দিকে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের হানিফ খান মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় চান মিয়ার দখলবাজির শিকার দাবি করে রফিকুল ইসলাম ও সাদেকুর রহমান লাভলু নামে আরও দুই ভুক্তভোগী উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মোলনে এনামুল হক জানান, ১৯৮৯ সালে সিদ্ধিরগঞ্জের পাইনাদি নতুন মহল্লায় এসে বসবাস শুরু করেন এবং ২০০৭ সালে জমি ক্রয় করে ২০০৯ সালে আইন মেনে তৎকালীন সিদ্ধিরগঞ্জ পৌরসভা থেকে প্ল্যান পাস করিয়ে বাড়ি নির্মাণ করেন। কিন্তু তার বাড়ির প্ল্যান পাস করা নেই দাবি করে বিভিন্ন সময় হয়রানি করছেন চাঁন মিয়া। এমনকি আদালতেও এ সংক্রান্ত একটি মামলাও করেন। যদিও সে মামলাটি আদালতে প্রমাণ না হওয়াতে সেটি খারিজ করে দেন। পরবর্তীতে চাঁন মিয়া বিভিন্ন দপ্তরে একই সংক্রান্ত বিষয়ে অভিযোগ দিয়ে হয়রানি করেন।

তিনি আরও জানান, সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন টেন্ডারের মাধ্যমে ওই রাস্তাটির দক্ষিণ পাশ দিয়ে ড্রেন কাজ শুরু করেন। কিন্তু এই কাজেও চান মিয়া বাধা দেন। তার বাউন্ডারি ওয়াল ভাঙলে মামলার হুমকি দেন। পরবর্তীতে ঠিকাদার বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে জানালে ঝামেলা এড়ানোর জন্য চান মিয়ার ওয়াল ছেড়ে ড্রেন নির্মাণ কাজ শুরু করেন। বর্তমানে ড্রেন নির্মাণ শেষ হলে মূল রাস্তার কাজে ঢালাই করতে গেলে চান মিয়া মুক্তিযোদ্ধার বিল্ডিং ভেঙে রাস্তা বড় করতে চান অন্যথায় রাস্তা করতে বাধা দেন। কিন্তু জনস্বার্থে যে রাস্তা নির্মাণ হচ্ছে সেটি বন্ধ করার বিরুদ্ধে এলাকাবাসী জড়ো হলে চান মিয়া সেখান থেকে পিছু হটেন এবং ঢালাই কাজ শেষ করেন। রাস্তার ঢালাই শেষ হলে চান মিয়া পুনরায় তার মটরের উপর আবারও ঢালাই করে তা বন্ধ করে দেন। এবং এর উপর স্প্রিড ব্রেকার করে দেন। এ বিষয়টি সিটি করপোরেশন মেয়র ও জেলা প্রশাসককেও তিনি লিখিতভাবে অভিযোগ জানিয়েছেন বলে সংবাদ সম্মেলনে জানান।

এনামুল হক জানান, চান মিয়া একজন ভূমিদস্যু হিসেবে এলাকায় পরিচিত। তিনি একজনের ১৫ শতাংশ জায়গা দখল করে নিয়েছে। এ ঘটনায় ইব্রাহিম খলিল বাদল বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগসহ মামলাও করেন। এছাড়াও চাঁন মিয়া এমন করে আরও অনেকের জমি দখল করে নিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, চান মিয়া সামছুদ্দিন নামে এক ব্যক্তি ইটভাটার লেবার ও কখনো কখনো ঠিকাদারি কাজ করতেন। বর্তমানে তিনি কোটি কোটি টাকার মালিক। তিনি বিএনপির সাথে জড়িত ছিলেন। বর্তমানে নিজেকে বাচাতে আওয়ামী লীগ নেতা হিসেবে পরিচয় দিয়ে থাকেন। এছাড়াও তিনি আবু তালেব নামে একজন ব্যক্তিকে হত্যার ঘটনার আসামীও। এছাড়াও চান মিয়া জাগরণী নামে একটি ভুয়া টিভি চ্যানেল খুলে এটির সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে অপকর্ম করে বেড়ায়।

এদিকে চান মিয়া প্রেস নারায়ণগঞ্জকে জানান, ঘটনাটি পুরোপুরি ভিত্তিহীন। এটা কাউন্সিলর ওমর ফারুক ও ওসিরে বাচানোর জন্য এই নাটক সাজানো হয়েছে। আর এনামুল কোন মুক্তিযোদ্ধা না। এনামুল এখানের এক মহিলার জায়গা ২ নম্বর কাগজ করে বিল্ডিং করেছে। সে মুক্তিযোদ্ধা হলে আরেক জনের জায়গায় বিল্ডিং করে কেমনে? আমার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে সমস্ত মিথ্যা ও ভিত্তিহীন।

প্রসঙ্গত, গত ১৬ ফেব্রুয়ারি নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবেই সিদ্ধিরগঞ্জের এক নম্বর ওয়ার্ডে রাস্তা নির্মাণে অনিয়ম ও চাঁদা দাবির অভিযোগ এনে কাউন্সিলর ওমর ফারুকের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেছিলেন চান মিয়া।

সব খবর
নগরের বাইরে বিভাগের সর্বশেষ