বুধবার ১৭ অক্টোবর, ২০১৮

এবার মা দুর্গা আসছেন হেমন্তে

মঙ্গলবার, ২ অক্টোবর ২০১৮, ২২:২২

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নীল আকাশ সাদা মেঘ আর চারদিকে শিউলি ফুলের গন্ধ মনে করিয়ে দেয় শরৎ এসেছে । মানে দেবী দুর্গার মর্ত্যে আগমনের সময় হয়েছে। প্রতিবার শরতে দুর্গাৎসব শুরু হলেও এবার মা আসছেন শরৎ শেষ করে হেমন্তে।

অবশেষে অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে আর মাত্র ১২দিন পর শুরু হতে যাচ্ছে সনাতন ধর্মালম্বীদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গা পূজা। ১৫ অক্টোবর বোধনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হতে যাচ্ছে শারদীয় দুর্গাৎসব। ১৬ অক্টোবর মহাসপ্তমী, ১৭ অক্টোবর মহাঅষ্টমী, ১৮ অক্টোবর মহানবমী, ১৯ অক্টোবর বিজয়া দশমীতে প্রতিমা বিসর্জনের মধ্যদিয়ে শেষ হবে পাঁচ দিনের উৎসব।

নারায়ণগঞ্জ জেলার প্রায় প্রতিটি মন্ডপেই শুরু হয়ে গিয়েছে প্রতিমা তৈরি ও মন্ডপ প্রস্তুতির কাজ।

নগরীর বিভিন্ন মন্দির ঘুরে দেখা যায়, সময়ের হিসাব না করে দিনরাত এক করে মন্ডপ সজ্জায় যেমনি ব্যস্ত সময় পার করছে হস্তশিল্পীরা, তেমনি প্রতিমা নির্মাণে নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছে প্রতিমা শিল্পীরা। কোথাও চলছে রং তুলির কাজ। আবার কোথাও শিল্পীরা তৈরী করছেন দেবীর অবয়ব।

এদিকে বিভিন্ন মন্ডপের মজুরী নিয়ে অভিযোগ রয়েছে প্রায় সকল প্রতিমা তৈরির কারিগরদের। নতুন পালপাড়া দুর্গা মন্দিরের প্রতিমা শিল্পী কানাইলাল চক্রবর্তী প্রেস নারায়ণগঞ্জকে জানান, দীর্ঘ বছর এই পেশায় জড়িত থাকায় এখন লস হইলেও করি।

গৌর নিতাই আখড়ার আরেক প্রতিমা শিল্পী প্রতিতযশা শিল্পী সুধির পালের ছেলে সুমন পাল বলেন, পৈত্রিক পেশা ধরে রাখতে মূর্তি বানাই। এর থেকে লাভ যা হয় ,তা খুবই সীমিত।

প্রতিমা বানানোর সাথে সাথে জোর কদমে চলছে মন্ডপ প্রস্তুতির কাজ। সাহাপাড়া নতুন সার্বজনীন পূজা মন্ডপ ঘুরে দেখা গেল সেখানে যারা প্রতিমা স্বজ্জার কাজ করছে তাদের বয়স ৬-১২ বছর।

এ প্রসঙ্গে মন্ডপ পরিকল্পনার প্রধান চারুশিল্পী ফরহাদ জানান, বড়দের দায়িত্ব দিলে তারা তা ঠিকমত পালন করে না । ছোটদের উৎসাহ ও আগ্রহ বেশি । যেমনটা আমি চাই তেমন ভাবেই কাজ করে । এবারের মন্ডপ প্রস্ততিতে নতুনত্ব নিয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এই নিয়ে দুই বছর ধরে এই মন্ডপ কাজ করছি। প্রতিবারই নতুন কিছু করার চেষ্টা করি। এইবছর বাঁশ, লক্ষ্মীর সরা দিয়ে মন্ডপসজ্জা হবে যেগুলো নারায়ণগঞ্জে আগে কখনো হয়নি।

টানবাজার বঙ্কবিহারী জিউর মন্দিরের পূজা কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পাপ্পু চক্রবর্তীকে মন্ডপ সজ্জা নিয়ে প্রশ্ন করলে তিনি প্রেস নারায়ণগঞ্জে বলেন, এইবার আমাদের চারটা গেইট হচ্ছে যার মধ্যে একটায় ১২ ফুটের দুর্গা মূর্তি থাকবে। এছাড়া আমাদের মন্ডপ সজ্জায় আছে এফডিসির লোকজন।

এছাড়া আমলাপাড়া নয়ামাটিস্থ বিভিন্ন রাস্তায় অস্থায়ী দুর্গা মন্ডপ তৈরির কাজও শুরু হয়ে গিয়েছে।

নারায়ণগঞ্জে এবার বিগ বাজাটের পূজার মধ্যে সাহাপাড়া নতুন সার্বজনীন পূজামন্ডপ, বঙ্কবিহারী জিউর মন্দির , আমলাপাড়া পূজা মন্ডপ, উল্লেখ যোগ্য।

প্রসঙ্গত ৯ই অক্টোবর পিতৃপক্ষকে বিদায় জানিয়ে ভোরে চন্ডীপাঠের মধ্যে দিয়ে শুভ মহালয়ার দেবীপক্ষ শুরুর মাধ্যমে দুর্গাৎসবের প্রাথমিক আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে।

সব খবর