বৃহস্পতিবার ২৪ অক্টোবর, ২০১৯

এবারের নির্বাচনে কাউকে ম্যাসেজ পাঠাতে হয়নি: সেলিম ওসমান

বৃহস্পতিবার, ৩ অক্টোবর ২০১৯, ১৬:৫৩

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: টানা পঞ্চম বারের মতো বিকেএমএ’র সভাপতি নির্বাচিত হয়ে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ একেএম সেলিম ওসমান বলেছেন, ‘আগে নির্বাচন একটা বাইন্ডিংয়ের মধ্যে ছিল। একজন দুইবারের বেশি নির্বাচন করতে পারবেন না। আমি বোধহয় সৌভাগ্যবান। আমার আমল থেকেই বাণিজ্য মন্ত্রণালয় এটাকে উইড্রো করেছেন। যে যতবার খুশি ততবার নির্বাচন করতে পারবে কিন্তু সময়মতো নির্বাচনটা হতে হবে। এবার নির্বাচন করতে কারোর কাছে এসএমএস পাঠাতে হয়নি এবং কারোর কাছে যেতে হয়নি।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় আমরা সাতাশটি মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে সাতাশজনই ডিরেক্টর নির্বাচিত হতে পেরেছি। এটাই আমার সবচেয়ে বড় পাওনা। সবারই কমিটমেন্ট একটাই- আমরা সবাই সম্মিলিতভাবে কাজ করবো। এখানে যেভাবেই হোক সেকেন্ড ভাইস প্রেসিডেন্টের জন্য দুটো আবেদন এসেছে। নির্বাচন কমিশনারের কাছে অনুরোধ রাখবো, এই দু’জনের মধ্যে কেউ যদি চান যে নির্বাচন থেকে প্রত্যাহার করতে চান তাদের এই সুযোগটা দিবেন।’

সেলিম ওসমান বলেন, ‘আমি কাউকে মনোনয়নপত্র কিনতে বলি নাই। এখানে কারও মনোনয়নপত্র বাতিলও করা হয়নি। আমিও চাচ্ছিলাম, আমারটাও যেন নির্বাচনের মাধ্যমে হয়। মনসুর সাহেবকে নির্বাচন করার জন্য অনুরোধ করেছিলাম।’

দ্বিতীয় সভাপতি পদে অমল পোদ্দার ও ফজলে এহসান শামীমের মধ্যে প্রতিদ্বন্দিতা হয়। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘অমল বাবু মুখটা বন্ধ রেখে ভোটটা বেশি পেয়েছেন। আর আরেকজন মুখটা খুলে ভোটটা কম পেয়েছে। এটা আমার মনে হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘আজকে আমার সভাপতি হওয়ার কথা ছিল না। এখানে হাতেম সাহেবের সভাপতি হওয়ার কথা ছিল। উনি আমার প্রতি সম্মান করে আমাকে জোর করে আমাকে আবারও এই চেয়ারটায় বসিয়েছেন।’

নিট ব্যবসায়ীদের এই নেতা বলেন, ‘আমরা নির্বাচনও করতে পারি আবার সকলে সম্মিলিতভাবে বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় নির্বাচিন করতে পারি। এটা একটা স্ট্যান্ডার্ড নির্বাচন।’

বিকেএমইএ’র নির্বাচন বোর্ডের চেয়ারম্যান ছিলেন এফবিসিসিআই’র সাবেক সিনিয়র সহ সভাপতি ও সাবেক সাংসদ মোহাম্মদ আলী। এছাড়া এফবিসিসিআই’র পরিচালক প্রবীর কুমার সাহা ও নারায়ণগঞ্জ ক্লাব লিমিটেড’র সভাপতি এম সোলায়মান এই বোর্ডের সদস্য ছিলেন।

সব খবর
রাজনীতি বিভাগের সর্বশেষ