সোমবার ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে একটি চক্র ইমামকে খুন করেছে: এসপি

বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ২৩:২৯

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: সোনারগাঁয়ে ইমামকে গলা কেটে খুনের ঘটনায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ। বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) দুপুরে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন তিনি।

পরে গণমাধ্যম কর্মীদের দেওয়া এক ব্রিফিংয়ে তিনি বলেন, ‘এখানে সে রুমে ছিল। সেখানে পুরাতন তালা খুলে নতুন তালা লাগিয়ে যায়। তাতে আমরা মনে করছি, কোনো একটি চক্র উদ্দেশ্য প্রনোদিতভাবে তাকে খুন করেছে।’

এসপি বলেন, ‘খুলনার তেরখাদা এলাকা নিহত ইমামের বাড়ি। সে (ইমাম) বেশি দিন হয়নি এখানে এসেছে। যার মধ্যে ঈদের ছুটিতে ৭ দিন নিজ বাড়িতে ছিলেন। আমরা সব কিছুই খতিয়ে দেখছি। তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত বলা যাবে না সে কোনো গোষ্ঠী বা সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত ছিল।’

তিনি আরো বলেন, গত মাসেই তিনি সোনারগাঁয়ে আসেন এবং ইমামতি শুরু করেন। আমরা তার বাড়ির এলাকায় খোঁজ নিয়ে জানতে পারি কোন সংগঠনের সঙ্গে তার সম্পৃক্ততা নেই।

উল্লেখ্য, সোনারগাঁয়ে একটি মসজিদের ভেতর থেকে ইমামের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২২ আগস্ট) সকাল সাতটায় উপজেলার মল্লিকপাড়া এলাকার নারায়নদিয়া বায়তুল জালাল জামে মসজিদের ইমামের কক্ষ থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

নিহতের নাম দিদারুল ইসলাম (২৬)। দিদারুল ইসলামের বাড়ি খুলনার তেরখাদা উপজেলায়। গত জুলাই মাস থেকে ওই মসজিদে ইমামতি করা শুরু করেন।

স্থানীয় মুসল্লিরা জানান, গত ২৬ জুলাই পাশ্ববর্তী ছোট কাজীরগাঁ গ্রামের মসজিদের ঈমামের রেফারেন্সে মসজিদে আসেন।

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ