মঙ্গলবার ২২ অক্টোবর, ২০১৯

ঈদ জামাতে কাঁদলেন শামীম ওসমান

সোমবার, ১২ আগস্ট ২০১৯, ১৩:৪৫

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ একেএম শামীম ওসমান কান্নাজড়িত কন্ঠে তার স্বজনদের জন্য দোয়া ভিক্ষা করেছেন। তিনি বলেন, ‘আমি আপনাদের সবার কাছে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। এখানে অনেকেরই মা নাই, বাপ নাই। আমি আপনাদের কাছে আমার মা-বাবা-ভাইয়ের জন্য দোয়া ভিক্ষা চাই। আমিও আপনাদের প্রিয়জনদের জন্য দোয়া করি।’

সোমবার (১২ আগস্ট) সকালে ইসদাইরে শামসুজ্জোহা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ঈদ জামাত পূর্ব আলোচনা তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ‘আমার খুব ভয় লাগে বিশ্বাস করেন। আমি আগামীকাল বাঁচবো কিনা আমি জানি না। আমার ভয় হয় আগামীকাল আমি না থাকলে এই জামাত যদি বন্ধ হয়ে যায়! সেজন্য বলেছিলাম, আমরা এতো এতো টাকা খরচ করি আর আমরা বছরে দুইটা ঈদের জামাত করতে পারবো না? কয় টাকা লাগে এই জামাত করতে? হয়তো দেড়-দুই কোটি টাকা লাগে।’

সাংসদ বলেন, ‘আমি পুরাতন জেলা প্রশাসকের বিদায় এবং নতুন জেলা প্রশাসকের দায়িত্ব গ্রহণের দিন অনুরোধ করলাম, এই জামাতের জন্য আপনারা একটা বরাদ্দ রাখেন। যাতে প্রতিবার এর থেকেও আরো বৃহৎ থেকে বৃহত্তর করতে পারি। কিন্তু কষ্টের সাথে বলতে হয় সেখান থেকে কোন উদ্যোগ নেওয়া হয়নি।’

তিনি আরো বলেন, ‘আল্লাহর পথে কাজ করেন। তা না করলে অহমিকা করে লাভ হবে না। কারণ আমরা চিরস্থায়ী না।’

শামীম ওসমান বলেন, ‘ঈদগাহের পাশে কবরস্থানের মসজিদের জামাত ছিল আটটায় কিন্তু সেটা সাড়ে সাতটায় করে দেওয়া হয়েছে। এটা নিয়েও রাজনীতি করতে হয়? কি উদ্দেশ্য? আরে জামাত বড়-ছোট হওয়াতে আমার কি আসে যায়? আমার ইচ্ছা ছিল আল্লাহকে খুশি করা।’

তিনি বলেন, ‘আগামীবার নারীদের জন্যও জামাতের ব্যবস্থা করবো। আমি থাকলেও সেটা হবে আমি না থাকলেও ওনারা ব্যবস্থা করবেন।’

শামসুজ্জোহা স্টেডিয়াম, কেন্দ্রীয় ঈদগাহ্ ও ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ পুরাতন সড়কের সমন্বয়ে এ ঈদের জামাতের আয়োজন করা হয়। সকাল আটটায় এই জামাত শুরু হয়। জামাতে ইমামতি করেন চাষাঢ়া নূর মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা আব্দুস সালাম।

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ