সোমবার ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

ঈদের ছুটিতে জেলাজুড়ে ৭ লাশ

শুক্রবার, ১৬ আগস্ট ২০১৯, ২১:২৭

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: পবিত্র ঈদ উল আযহার টানা ছুটিতে স্বস্তিতে সময় কাটিয়েছে নগরবাসী। তবে এই স্বস্তির দিনগুলোতেও জেলা জুড়ে ঘটেছে অস্বস্তিকর বেশ কিছু ঘটনা। ছুটির এই পাঁচ দিনে জেলা জুড়ে পাওয়া যায় নারী ও শিশুসহ ৭ জনের লাশ। বাদ যায়নি ঈদের দিনটিও। সেদিনও দুর্বৃত্তদের হাতে খুন হয়েছে এক যুবক। তবে কমেনি ডেঙ্গুর ভয়াবহতা। ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মারা যায় এক শিশু।

সোমবার (১২ আগস্ট) মধ্য রাতে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় অভিজিৎ সাহা (১১) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। অভিজিৎ চাষাঢ়ার মাউন্টেন স্কুলের শিক্ষার্থী ছিল।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, অভিজিৎ ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে গত ৮ আগস্ট রাতে গেন্ডারিয়ার ধুপখোলায় আজগর আলী হাসপাতালে ভর্তি হয়। রোববার রাতে শিশুটির শারিরীক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। পরে সোমবার মধ্যরাতে তার মৃত্যু হয়।

রোববার (১১ আগস্ট) রূপগঞ্জে দিবাগত রাতে চট্টগ্রামগামী একটি লবণের ট্রাক ও ভুলতাগামী একটি যাত্রীবাহী সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে এক পুলিশ সদস্যসহ দুইজন নিহত হয়। এ সময় অজ্ঞাতনামা আরও একজন আহত হন।

নিহতরা হলেন পুলিশ কনস্টেবল সায়মন ইসলাম দুর্জয় ও রাজধানীর বাড্ডার স্বর্ণ ব্যবসায়ী নিশি কান্ত দাসের ছেলে শিপন চন্দ্র দাস।

সোমবার (১২ আগস্ট) ঈদের দিন ভোর রাতে ফতুল্লায় এক বন্ধুকে চোর বলে তাড়িয়ে দিয়ে আরেক বন্ধুকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। ফতুল্লার পাগলা রেলস্টেশন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত যুবক রাকিব (২০) ফতুল্লার নয়ামাটি মুসলিমপাড়া এলাকার মজিদ হাওলাদারের বাড়ির ভাড়াটিয়া নওশেদ বেপারীর ছেলে। তার গ্রামের বাড়ি শরীয়তপুর জেলার নড়িয়ার নয়াপাড়ায়।

হত্যাকা-ের সময় রাকিবের সঙ্গে থাকা তার বন্ধু আবদুল্লাহ জানান, পাগলা বাজার থেকে কেনাকাটা শেষে রিকশা যোগে রাকিবের সঙ্গে বাসায় ফিরছিলো তারা। পাগলা রেলস্টেশন এলাকায় আসা মাত্র একই এলাকার গিয়ার মানিকসহ ৪-৫ জন রিকশার গতিরোধ করে।

তিনি জানান, তখন দুর্বৃত্তরা আবদুল্লাহকে রিকশা থেকে নামিয়ে চোর চোর বলে ধাওয়া দিয়ে তাড়িয়ে দেয়। কিছুক্ষন পর এসে রাকিবের রক্তাক্ত লাশ পড়ে থাকতে দেখেন।

মঙ্গলবার (১৩ আগস্ট) বিকেলে ফতুল্লা ডিক্রীরচর গুদারাঘাট এলাকায় ধলেশ্বরী নদীতে গোসল করতে নেমে পলাশ চন্দ্র দাস (১১) নামে এক শিশু নিখোঁজ হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, এগারো বছর বয়সী পলাশ চন্দ্র দাস বিকেল সাড়ে তিনটায় ডিক্রীরচর এলাকায় ধলেশ্বরী নদীতে গোসল করতে গিয়ে পানিতে তলিয়ে যায়।

ফায়াসার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের অনেক খোঁজাখুজির পরও তাকে আর খুঁজে পাওয়া যায় না। পানিতে ডুবে মৃত্যুর পর তার লাশ স্রােতের টানে দূরে কোথাও চলে গেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার (১৩ আগস্ট) কেন্দ্রীয় লঞ্চ টার্মিনাল ঘাট এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদী থেকে বন্দর উপজেলার স্বাস্থ্য কেন্দ্রের সেবিকা (নার্স) নাজনীন আক্তারের লাশ উদ্ধার করা হয়। এর আগে ঈদের দিন সকাল থেকে নিখোঁজ ছিলেন নার্স নাজনীন আক্তার। এ ঘটনায় তার বাবা বন্দর থানায় একটি জিডিও দায়ের করেন।

মঙ্গলবার (১৩ আগস্ট) সদর উপজেলার কুতুবপুর নয়ামাটি এলাকা থেকে জুয়েল খন্দকার (৪০) নামে এক প্রবাসীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত জুয়েল খন্দকার মুন্সিগঞ্জ জেলার টঙ্গিবাড়ি থানার জয়নগর গ্রামের শাহিন খন্দকারের ছেলে। তিনি গত দু’মাস আগে আবুধাবি থেকে ছুটিতে দেশে আসেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, জুয়েল খন্দকার স্ত্রী মণি বেগম এবং এক ছেলে ও এক মেয়ে নিয়ে কুতুবপুরের মুসলিমপাড়া এলাকায় ভাড়ায় বসবাস করতো। স্ত্রীর সাথে তার পারিবারিক কলহ চলছিলো। সেই কলহের জের ধরে সিলিং ফ্যানের সাথে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

স্ত্রী মণি বেগমের দাবি, মঙ্গলবার দুপুর ১২ টার দিকে তিনি চিতাশাল বাজার করতে যান। বাজার থেকে ফিরে এসে তিনি দেখেন তার স্বামী জুয়েল খন্দকারের মৃতদেহ ফ্যানের সাথে ঝুলছে।

শুক্রবার (১৬ আগস্ট) আড়াইহাজারে রিনা বেগম (৩০) নামে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে শ^শুড় বাড়ির পরিবারের দবি, পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় বিষ পানে আত্মহত্যা করেছে সে।

দুপুরে আড়াইহহাজার উপজেলার গোপালদী পৌরসভার জালাকান্দি এলাকায় অবস্থিত নিহতের নিজ বাড়ি থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে কোনো এক সময় মারা যান রিনা বেগম। নিহত রিনা বেগম ওই এলাকার হামজা মিয়ার স্ত্রী। একই এলাকার বাসিন্দা রেকমত আলীর মেয়ে।

তিনি বলেন, ‘মরদেহ উদ্ধার করে মর্গে পাঠানো হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে। তবে কোনো পক্ষ এখনো কোনো অভিযোগ করেনি।’

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ