বৃহস্পতিবার ২২ অক্টোবর, ২০২০

আজকাল পুরস্কারের সঙ্গে আনুগত্যের সম্পর্ক জড়িত: সলিমুল্লাহ খান

শুক্রবার, ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ২২:০০

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: লেখক, গবেষক, দার্শনিক ও রাজনীতি বিশ্লেষক সলিমুল্লাহ খান তাঁর বক্তব্যে বলেন, আজকাল পুরস্কারের সঙ্গে আনুগত্যের সম্পর্ক জড়িত। অবদানের বিষয়টি দ্বিতীয় পর্যায়ে পরে যায়। লিখার পর পুরস্কার পাওয়া উচিত তার পাঠকের কাছ থেকে। পুরস্কারের মধ্যেও কিছু পরিমাণ দূর্নীতি মেশানো থাকে বলে পুরস্কার নিতে ভয় পাই। যতো বড় পুরস্কার ততো বড় দূর্নীতি। রাষ্ট্র যখন পুরস্কারের মধ্যে হস্তক্ষেপ করে তখন সেটা সমাজ থেকে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন ও বিপরীত দিকে ধাবমান হয়। আমাদের দেশের সাম্প্রতিক কয়েকটা পুরস্কার এর উদাহরণ।

শুক্রবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জের আলী আহাম্মদ চুনকা নগর মিলনায়তনে শ্রুতি সাংস্কৃতিক একাডেমির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও রনজিত কুমারের ৫৮ তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এই কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, আমাদের রাষ্ট্রের ক্ষমতা অনেক বেড়েছে। শুধু ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনই নয় কথায় কথায় আইন প্রয়োগ বেড়ে গেছে। ক্রসফায়ার বেড়ে গেছে। পূর্বে রাষ্ট্রের ক্ষমতা ছিলো নগণ্য। বিচার ব্যবস্থা ছিলো সমাজ ভিত্তিক। এখন রাষ্ট্রের কর্তৃত্ব বাড়লেও জনগণের নিরাপত্তা ও স্বাধীনতা বেড়েছে কি না সেটা বিবেচ্য বিষয়।

সংগঠনের সভাপতি আব্দুর রহমানের সভাপতিত্বে সিলেট শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মাযহারুল ইসলাম ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রফিউর রাব্বি রাজনীতিবীদ হামিদুল হক, শ্রুতির উপদেষ্টা রথিন চক্রবর্তী, পরিচালক ধীমান সাহা জুয়েল ও সদস্য অরিন্দম পাল বক্তব্য রাখেন।

উৎসবে লেখক ও গবেষক অধ্যাপক সলিমুল্লাহ খানকে ‘রনজিত পুরস্কার ২০২০’ প্রদান করা হয়।

রনজিত কুমারকে স্মরন করে আলোচকরা বলেন, ‘জীবন মৃত্যুর সন্ধিঃক্ষনে দাঁড়িয়ে থেকেও আমৃত্যু মানুষের মুক্তির কথা বলেছেন রনজিত কুমার। নব্বই দশকে এসে শিশু কিশোরদের নিয়ে নারায়ণগঞ্জে শুরু করেছিলেন সংগঠন গড়ে তোলার কাজ। লিখালিখি ও সম্পাদনার পাশাপাশি মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের হয়ে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে ছড়িয়ে থাকা মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস তুলে এনেছেন নিবিড়ভাবে। প্রাণ প্রকৃতির মুক্তির সংস্কৃতি ও সংগ্রামে রনজিত কুমার দিশারী।’

সব খবর
শিল্প ও সাহিত্য বিভাগের সর্বশেষ