সোমবার ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

‘অস্বীকার করার মধ্য দিয়ে নতুনের জন্ম হয়’

শুক্রবার, ১৪ জুন ২০১৯, ২০:৩১

প্রেস নারায়ণগঞ্জ.কম

প্রেস নারায়ণগঞ্জ: সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রফিউর রাব্বি বলেছেন, ‘কবিতার ছন্দ আমাদের ভালো লাগতেও পারে নাও লাগতে পারে। আমি একে অস্বীকার করতে পারি। তবে অস্বীকার করবো তখনই যখন এটি আমি জানবো। অস্বীকার করার মধ্য দিয়ে নতুনের জন্ম হয়। যদি একে অস্বীকার করা না যায় তাহলে নতুন কিছু সৃষ্টি হয় না।’

শুক্রবার (১৪ জুন) বিকেল সাড়ে ৪টায় নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইনস্টিটিউটে অনুষ্ঠিত ‘স্বরধ্বনি’র প্রমিত বাংলা উচ্চারণ, কবিতার ছন্দ ও আবৃত্তি কর্মশালার প্রথম আবর্তনের সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, ‘কবিতায় দুই মাত্রা কম হয়েছে, বেশি হয়েছে তাতে কিছু যায় আসে না। কথা হচ্ছে কবিতাটা যাদের জন্য তাদের ভালো লাগে কিনা। ভালো লাগার বিষয়টা স্কেল দিয়ে মেপে হয় না। নেরুদার কবিতা যখন হাজারো শ্রমিকের মাঝে আবৃত্তি করতেন, শ্রমিকরা আনন্দিত হতো, কাঁদতো। তার মানে শ্রমিকরা কবিতার সঙ্গে সম্পৃক্ত হতো। কবিতাটাকে তারা গ্রহণ করছে; এটাই সবচেয়ে বড় বিষয়। এর মানে এই নয় ব্যাকরণ গুরুত্বহীন। ব্যাকরণের দেয়ালকে ভাঙ্গার ক্ষমতা রাখে, যে জানে। প্রকৃত অর্থে যে এটা জানে সেই ভাঙ্গার অধিকার রাখে।’

অনুষ্ঠানের শুরুতেই ‘স্বরধ্বনি’র কর্মশালায় অংশগ্রহণকারীরা একটি যৌথ পরিবেশনা উপস্থাপন করেন। অনুষ্ঠানে সূচনা বক্তব্য রাখেন স্বরধ্বনির প্রশিক্ষক ও পরিচালক কবি আহমেদ বাবলু। বক্তব্য রাখেন নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইনস্টিটিউটের অধ্যক্ষ ও চিত্রশিল্পী শামসুল আলম আজাদ, নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সাবেক সভাপতি ও আবৃত্তি শিল্পী ভবানী শংকর রায়, কবি ও সংস্কৃতি কর্মী আরিফ বুলবুল, বর্তমান সভাপতি ও আবৃত্তি শিল্পী জিয়াউল ইসলাম কাজল, সাধারণ সম্পাদক ধীমান সাহা জুয়েল, সমগীত সংস্কৃতিক প্রাঙ্গণের কেন্দ্রীয় সভাপতি শিল্পী অমল আকাশ প্রমুখ। অনুষ্ঠানের শেষ পর্যায়ে অংশগ্রহণকারীদের অভিনন্দনপত্র প্রদান করেন অতিথিবৃন্দ।

গত ১ ফেব্রুয়ারি ভাষার মাসে ‘স্বরধ্বনি’র আয়োজনে তিন মাসের প্রমিত বাংলা উচ্চারণ, কবিতার ছন্দ ও আবৃত্তি কর্মশালাটি শুরু হয়।

সব খবর
নগর বিভাগের সর্বশেষ